অতিবর্ষণে কাপ্তাই লেকে পানি বৃদ্ধিতে বেড়েছে বিদ্যুৎ উৎপাদন

কাপ্তাই জল বিদ্যুৎ কেন্দ্র
গত তিন দিনের অবিরাম বৃষ্টিতে রাঙামাটির কাপ্তাই লেকে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। আর পানি বৃদ্ধির পাশাপাশি কাপ্তাই বিদ্যুৎ কেন্দ্রে উৎপাদনও বেড়েছে।
কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র কন্ট্রোল রুম সূত্রে জানা গেছে, বৃষ্টির আগে কাপ্তাই লেকে পানি ছিল ৭৮.২৬ মীন সি লেভেল(এম এস এল)। বৃষ্টির পর রুলকার্ভের রেকর্ড অনুযায়ী বর্তমানে লেকে পানি রয়েছে ৮১.৬৩ ফুট এমএসএল পানি। কাপ্তাই লেকে বর্তমানে প্রতি ঘন্টায় .১৫ এমএসএল পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে সূত্র জানায়।
কাপ্তাই লেকে পানি বৃদ্ধি এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ার কথা স্বীকার করেছেন কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মোঃ শফিক উদ্দীন আহমেদ। তিনি বলেন,অবস্থা দৃষ্টে মনে হচ্ছে বৃষ্টি আরো কয়েকদিন অব্যাহত থাকবে। রাঙ্গামটি পার্বত্য জেলার বেশীরভাগ এলাকার বৃষ্টির পানি নালা নর্দমা খাল বিল ছোট বড় পাহাড় পর্বত হাওড় বাওড় গড়িয়ে কাপ্তাই লেকে এসে পড়ছে। এতেই লেকে পানির মাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে।
সূত্র জানায় কাপ্তাই লেকে সর্বোচ্চ ১০৯ ফুট এমএসএল পানি ধারণ ক্ষমতা রয়েছে। এর বেশি পানি স্পীলওয়ের ১৬টি গেইট দিয়ে ছেড়ে দিতে হয়। বাড়তি পানি সরাসরি কর্ণফুলী নদীতে গিয়ে পড়বে।গতবছর লেকে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ১৬ টি গেইট খুলে টানা প্রায় এক মাস পানি ছাড়া অব্যাহত ছিল। তবে সেই তুলনায় লেকে পানি এখনো অনেক কম। কিন্তু বৃষ্টির মাত্রা যেহারে দিন দিন বাড়ছে তাতে খুব সহসা লেক পানি ধারণ ক্ষমতার সর্বোচ্চ পয়েন্ট ছুঁয়ে ফেলবে বলে সংশ্লিষ্টরা অনুমান করছেন। লেকে পানি বাড়লে কাপ্তাই বাঁধে পানির চাপও বাড়ে। বাঁধ রক্ষা করার জন্যই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পানি ছেড়ে দেওয়া হবে বলে পিডিবি সূত্রে জানা গেছে।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Shubhashish Chakma বলেছেন

    বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়লে রাঙ্গামাটিতে এত লোড শেডিং কেন?

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।