অবশেষে যৌন হয়রানির অভিযুক্ত শিক্ষক এজাবুর’কে বদলি

কাপ্তাই

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ-সুইডেন পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট-এর আলোচিত শিক্ষক মোঃ এজাবুর আলমকে ভোলা পলিটেকনিক্যালে বদলী করা হয়েছে। এর পূর্বে ইনস্টিটিউটের পড়ুয়া ছাত্রীদের যৌন হয়রানির ঘটনায় আলোচনায় আসেন টেক/সিভিল উড বিভাগের জুনিয়র ইনস্টাকটর মোঃ এজাবুর আলম।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (পিআইডব্লিউ) সাক্ষরিত এক অফিস আদেশে আলোচিত শিক্ষক মোঃ এজাবুর আলমকে বদলীর আদেশ দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, এজাবুর আলম বাংলাদেশ-সুইডেন পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট এর টেক/সিভিল বিভাগের জুনিয়র ইন্সট্রাক্টর হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার বিরুদ্ধে একাধিক ছাত্রীকে ফেসবুকে ইনবক্সে ও সরাসরি ফোনে যৌন নিপীড়ন ও আপত্তিকর কথাবার্তার মাধ্যমে হয়রানি এবং কুপ্রস্তাব দেয়ার অভিযোগ আসে। যার প্রেক্ষিতে তার অপসারণ ও শাস্তির দাবিতে আন্দোলন শুরু হয় কারিগরি প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাসে। গত কয়েকদিন ধরেই টানা বিক্ষোভ করছিলেন শিক্ষার্থীরা তার অপসারণ দাবিতে। এর জেরেই এই বদলীর আদেশ আসল।

এই ব্যাপারে বাংলাদেশ সুইডেন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এর অধ্যক্ষ আব্দুল মতিন হাওলাদার জানান, এই ঘটনায় ইনস্টিটিউট’র তদন্ত কমিটি কতৃক রিপোর্টটি কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠানোর পর আজ বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত শিক্ষক মোঃ এজাবুর আলমকে ভোলায় বদলীর আদেশ দেওয়া হয়। একই সাথে অত্র প্রতিষ্ঠান থেকে আজ তাকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে বলে তিনি নিশ্চিত করেছে।এছাড়া বর্তমানে বিএসপিআই ক্যাম্পাস স্বাভাবিক রয়েছে বলে তিনি জানান।

এদিকে আন্দোলনরত ৫১ তম ব্যাচ মেকানিক্যাল এর ছাত্র মাহফুজুর রহমান জানান, বিষয়টি শুনে আমরা খুব হতাশ হয়ে পড়েছি। এই ঘটনায় আমাদের অধ্যক্ষ আব্দুল মতিন স্যার মিডিয়া কর্মীদের বলেছিলো, শিক্ষক এজবুল আলমের বিরুদ্ধে তদন্ত রিপোর্ট মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হবে। এবং মন্ত্রনালয় কতৃক সিন্ধান্ত দেওয়া হবে। কিন্তু আজ শিক্ষকের বিরুদ্ধে বদলীর দাপ্তরিক রিপোর্ট আসলো। এতে আমরা হতাশ হয়ে পড়েছি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।