অস্ত্র ছাড়ুন, নইলে ধ্বংস অতি নিকটে : রাঙামাটিতে সিইসি নুরুল হুদা

রাঙামাটিতে সিইসি নুরুল হুদা
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) নুরুল হুদা বলেছেন, অস্ত্রের ভাষায় ধ্বংসের খেলায় মেতে বিশেষ কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আজ অবধি ঠিকে থাকতে পারেনি, পার্বত্যাঞ্চলেও পারবে না। সময় থাকতে অস্ত্র ছাড়ুন, নইলে ধ্বংস অতি নিকটে। আজ রবিবার দুপুরে বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে নির্বাচন কমিশন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে হতাহত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে সিইসি নুরুল হুদা পাহাড়ের অবৈধ অস্ত্রধারীদের উদ্দেশ্যে এ হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।
তিনি বলেন, বাঘাইছড়ি হত্যাকান্ড ন্যাক্কারজনক একটি ঘটনা, এটা মেনে নেয়া যায় না। প্রত্যেক কিছুর সীমা থাকে, এ ঘটনায় এটাও লংঘন করা হয়েছে। তারা যত বড় শক্তিশালী হোক না কেন, আইনের আওতায় তাদের আনা হবে, শাস্তি তাদের পেতেই হবে।
পাহাড়ে যারা অস্ত্র দিয়ে রক্তের খেলায় মেতেছে সিইসি তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, এখনো সময় আছে অস্ত্র ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুন, নইলে ধ্বংস ঠেকাতে পারবেন না। দেশের বিভিন্ন স্থানে এর থেকেও বড় বড় সন্ত্রাসী,মাফিয়া ঠিকে থাকতে পারেনি। তাই সময় থাকতে অস্ত্র সমর্পন করে পাহাড়ের অশান্ত পরিবেশ শান্ত ও সুন্দর হিসেবে গড়ে তুলতে ভুমিকা রাখুন।
এদিন আয়োজিত অনুষ্ঠানে গত ১৮ মার্চ সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ৭ জনের পরিবারকে সাড়ে ৫লক্ষ টাকা,গুরুতর আহত ১৯জনকে ১ লক্ষ টাকা করে ও সাধারণ আহত ১৪জনকে ৫০ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়।
এ সময় নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাৎ হোসেন, নির্বাচন সচিব হেলাল উদ্দিন,চট্টগ্রাম এরিয়া কমান্ডার জিওসি মেজর জেনারেল মতিউর রহমান,রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ, পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবির সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গতঃ,গত ১৮ মার্চ বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাচনের ভোট গণনা শেষে সন্ধ্যায় বাঘাইহাট থেকে উপজেলা সদরে ফেরার পথে দীঘিনালা-মারিশ্যা সড়কের ৯ কিলো নামক স্থানে অস্ত্রধারীরা ব্রাশ ফায়ার করলে ৭ জন নিহত ও ২৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।