আনাই, আনুচিং’র ভবিষ্যত দায়িত্ব নিলেন খাগড়াছড়ির জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

বাংলাদেশ অনুর্দ্ধ ১৯ ফুটবল দলের কৃতী ফুটবলার খাগড়াছড়ির যমজ দুই বোন আনাই ও আনুচিং মগিনী’র ভবিষ্যত দায়িত্ব পালনের ঘোষণা দিয়েছেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু।

তিনি তাঁদের পরিবারের আর্থিক সামর্থ্য বিবেচনা করে এক বড় বোনকে মাস্টার রোলে জেলা পরিষদে নিয়োগের পাশাপাশি প্রতিমাসে আনাই ও আনুচিংকে পরিষদ তহবিল থেকে নগদ দশ হাজার টাকা করে দেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তরুণ রাজনীতিক মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু খাগড়াছড়ি সদরের সাতভাইয়াপাড়া’র আনাই মগিনী, আনুচিং মগিনী এবং লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার মনিকা চাকমা’র ফুটবল কৃতিত্বকে জেলাবাসীর জন্য গর্বের উল্লেখ করে বলেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ সব সময় ফুটবলে কন্যাদের পাশে আছে এবং থাকবে। তিনি আনাই-আনুচিং ও মনিকা’’র বাড়ি যাবার পথে তাঁদের নামে দুটি পাকা সেতু তৈরির ঘোষণাও দেন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ ২০২২) দুপুরে পরিষদ সম্মেলন কক্ষে ফুটবল কন্যাদের ফুলেল শুভেচ্ছা ও সম্মাননা ক্রেষ্ট বিতরণ শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব ঘোষণা দেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন,বিশ্ব দরবারে ফুটবল কন্যারা জাদুকরী বল এর মাধ্যমে বাংলাদেশের সম্মান ও পরিচিতি বৃদ্ধি করেছে, তাঁরা বাংলাদেশের গর্ব। তাই তাঁদের প্রতিটি সময়ে পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করে ফুটবলে মনোনিবেশসহ টিমের কার্যক্রম এগিয়ে নিতে পাহাড়ে ফুটবলের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে ক্রীড়া সংস্থার প্রতি উদ্যোগ নেওয়ার অনুরোধ জানান। নারীদের ফুটবলে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে সকল সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন তিনি।

পরিষদের জনসংযোগ কর্মকর্তা চিংলামং চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ সদস্য ও ক্রীড়া বিভাগের আহবায়ক মেমং মারমা, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জুয়েল চাকমা, পরিষদের সদস্য শাহিনা আক্তার, মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা বশিরুল হক ভূইঞা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো.আলাউদ্দিন চৌধুরী, আঞ্চলিক পরিষদেরর সদস্য রক্তউৎপল ত্রিপুরা, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল আলম এসময় উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের সদস্যবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারি, সাংবাদিক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।