আলীকদমে টমটম চালকরা মানছে না নিয়ম, ভোগান্তির শেষ নেই স্থানীয়দের

নির্বিকার প্রশাসন !

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় প্রতি সোমবার সবচেয়ে বড় হাটবাজার বসে। পুরো উপজেলার একটি মাত্র হাট বাজার হচ্ছে আলীকদম বাজার। সদর থেকে শুরু করে দূর্গমে বসবাস করা সবার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী কেনা বেচা হয় এ বাজারের কিন্তু বাজারে আগত ক্রেতা বিক্রেতা সবার ভোগান্তির প্রধান কারণ হয়ে উঠেছে ইঞ্জিন চালিত টমটম ও রিক্সাগুলো। নিয়ম অমান্য করে যেখানে সেখানে গাড়ি পার্কিং করা, যাত্রী উঠানোর কারনে এই দূর্ভোগের সৃষ্টি বলে মনে করছে স্থানীয়রা।

আজ সোমবার (১২ অক্টোম্বর) দুপুর ২ টার সময় বাজারের মাছ গলিতে দেখা যায়, আড়াআড়ি ভাবে তিন চারটি টমটম দাঁড়িয়ে আছে। আবার কোন কোন চালক গাড়ী থামিয়ে যাত্রী তুলছে। এমন দৃশ্য শুধু মাছ বাজার গলি নয়, পুরো বাজার জুড়ে।

বাজারে আসা ক্রেতা শহিদুল ইসলাম,ছবিচন্দ্র ত্রিপুরা বলেন,বাজারের হাটার জায়গার সংক্লোলন আর উপর টমটম রিক্সার বাজারের প্রবেশ করে যাতায়াত বন্ধ করে ফেলেছে। প্রশাসনের ও বাজার সমিতির উদাসিনতার কারণে তারা দিনদিন বেপরোয়া হচ্ছে।

সবজি বিক্রেতা হারুন রশিদ,রিমন চাকমা বলেন, প্রতি হাটবাজারের দুয়েক জন আঘাত পাওয়া স্বাভাবিক বিষয়,অনেক সময় মালামালের উপর গাড়ী তুলে দেয়,বাজার সমিতিকে বার বার জানানোর পর কোন সুরাহা পাইনি।

আলীকদম রিক্সা চালক সমিতির সভাপতি মোঃ আবুল বশর বলেন,হাটবাজারের রিক্সা ও মিনি টমটম যাতে বাজারের প্রবেশ করতে না পারে তার জন্য দুইজন লাইন ম্যান নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তবুও যারা অমান্য করে বাজারের প্রবেশ করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। তিনি আরো বলেন, সমন্বয় না থাকায় সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে।

এদিকে এবিষয়ে টমটম সমিতির সভাপতির সাথে মুটোফোনে যোগাযোগ করলেও কথা বলা সম্ভব হয় নি।

আলীকদম বাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক বলেন,অনেক বার চিঠি দেওয়া হয়েছে কিন্তু সমিতিগুলো কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। বিষয়টি আলীকদম থানায় সিন্ধান্ত হয়েছিল কিন্তু মানে নি। উপজেলা প্রশাসনকে জানাব বলে সিন্ধান্ত নিয়েছি।

আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সায়েদ ইকবাল জানান,আইন শৃঙ্খলা মিটিংয়ে তাদের সর্তক করা হবে। তারপরও যদি হাটবারের বাজারের প্রবেশ করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।