আলীকদমে বেড়েছে ম্যালেরিয়া ও ডায়রিয়ার প্রকোপ

২ সপ্তাহে আক্রান্ত ৪৮ জন

NewsDetails_01

বর্ষার মধ্যে বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় বেড়েছে ম্যালেরিয়াও ডায়রিয়ার প্রকোপ। গত ২ সপ্তাহে এই রোগে অন্তত ৪৮ জন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। আজ সোমবার (২৪ জুন) উপজেলার ৪ নং কুরুকপাতা ইউপি চেয়ারম্যান ক্রাত প্রু ম্রো এতথ্য জানায়।

স্থানীয়রা জানায়, বর্ষা মৌসুমে জেলার দূর্গম এলাকায় সুপেয় জলের সংকটের কারনে ডায়রিয়ার এবং মশা বেড়ে যাওয়ায় বাড়ে ম্যালেরিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বর্ষায় ঝিরি থেকে বয়ে আসা ময়লা পানি পান করে বিভিন্ন রোগের পাশাপাশি ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হন স্থানীয়রা। বৃষ্টির পানিতে পাহাড় স্যাঁতসেতে থাকায় ম্যালেরিয়া জীবাণুবাহী আনোফেলিশ মশার উপদ্রবও বেড়ে যায়, সেই সাথে মশারি ব্যবহার না করার ফলে বাড়ে ম্যালেরিয়া রোগীর সংখ্যা।

বিগত বছরগুলোতে এর আগেও এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে অনেকের। অন্যান্য বছরের মত এবারও বর্ষা শুরু হতেই এই এলাকায় বেড়েছে ডায়রিয়া ও ম্যালেরিয়ার প্রকোপ। গত দুই সপ্তাহে ৪ নং কুরুকপাতা ইউপির ৭,৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে অন্তত ৩০ জন ম্যালেরিয়ায় ও ১৮ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে।

আলীকদম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ২০২৩ সালে উপজেলার ৪০ হাজার ৯৫৮ জনকে পরিক্ষায় ২ হাজার ৩৩৫ জনের শরীরে ম্যালেরিয়ার উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছিল। চলতি বছরের মে পর্যন্ত ১৬ হাজার ৬৫৪ জনের পরিক্ষায় ২২৩ জনের শরীরে ম্যালেরিয়া রোগের জীবানু শনাক্ত হয়েছে।

NewsDetails_03

৪ নং কুরুকপাতা ইউপি চেয়ারম্যান ক্রাত প্রু ম্রো আরো জানান, তার ইউপির ৭,৮ ও ৯ নাম্বার ওয়ার্ডে গত কয়েক সপ্তাহে অন্তত ৩৫ জন ম্যালেরিয়া ও ২০ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। এছাড়া গত ২০ দিন আগে ডায়রিয়ায় এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

আলীকদম উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার মাহাবুব জানান, গত কয়েক সপ্তাহে কুরুকপাতা এলাকায় জ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় গত সপ্তাহে একটি মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছিল । সেখানে কয়েকটি পাড়ার ৪৫ জনকে পরিক্ষার পর ২৭ জনের শরীরে ম্যালেরিয়া রোগের জীবানুর উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের সবাইকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে এবং আজ (সোমবার) একটি মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছে।

জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, ২০২১ সালে বান্দরবানে ম্যালেরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫,২২৮ জন, মারা যায় ২ জন। ২০২২ সালে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩,৮১৮ জন। ২০২৩ সালে আক্রান্তের ১০,০০১ জন, মারা যায় ২জন। ২০২৪ সালের মার্চ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬০জন।

প্রসঙ্গত, দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে তিন পার্বত্য জেলায় ম্যালেরিয়া আক্রান্তের সংখ্যা বেশি, তবে দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে ম্যালেরিয়া আক্রান্তের মধ্যে বান্দরবান শীর্ষস্থানে অবস্থান করছে।

আরও পড়ুন