আলীকদমে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ইজি বাইক

ট্রাফিক বিভাগের নিস্ক্রিয়তা

NewsDetails_01

ট্রাফিক বিভাগের নিস্ক্রিয়তায় একের পর এক দূর্ঘটনা ঘটলেও নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই বান্দরবানের আলীকদমে চলছে স্থানীয় যাত্রী পরিবহণ সার্ভিস “ইজিবাইক” যা টমটম। কিন্তু এই টমটমের সুবিধার চেয়ে অসুবিধা এখন বেশি হয়ে দাঁড়িয়েছে, সাধারণ জনসাধারণ সড়কে চলাচল করতে গেলেই পিছঁন দিক থেকে এসে হঠাৎ করেই এই টমটম গিয়ে শরীরে দিচ্ছে ধাক্কা, আর এতে সড়কে ছিটকে পড়ে প্রতিদিনই ঘটছে ছোট বড় নানা দুর্ঘটনা।

চলতি বছরে জানুয়ারি থেকে ৪ জুন পর্যন্ত ইজি বাইকের দূর্ঘটনায় ২ জনের মৃত্যু; নিহত দু’জনই শিশু। আহত হয়েছে অনন্ত কয়েক শতাধিক।

সরজমিনে আলীকদমে পুরো উপজেলায় বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে দেখা যায়, ইজি বাইকের অনেক চালকের বয়স আঠারো বছরের নিচে। জীবিকার তাগিদে তারা ইজি বাইক চালালেও নিয়মনীতি তোয়াক্কা করছে না। ফলে সাধারণ জনসাধারণ দূর্ঘটনা শিকার হচ্ছে বেশি।

সংলিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ইজি বাইকের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ট্রেড লাইসেন্স দেওয়া হলেও চালকদের জন্য কোনো নিয়ম কিংবা লাইসেন্স না থাকায় অনেকে বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। অন্যদিকে বিভিন্ন দপ্তরে মাসোয়ারা নিয়ে চলছে এই ইজি বাইক।

NewsDetails_03

ইজিবাইকের দূর্ঘটনায় নিহত হওয়া দুই জন হলেন, ২নং চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের বাদশা মিয়ার ছেলে ইমাম হোসেন। আরেকজন সদর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের মৃত আব্দুল বারেকের ছোট ছেলে মোঃ আদিল (৫)

গত সপ্তাহে ইজি বাইকের দূর্ঘটনার শিকার হওয়া রোজিনা চাকমা জানান, পিছন দিকে এসে টমটমটি মেরে দিয়ে চলে গেছে। আমি মাথা তোলার সময় পাই নি, ড্রাইভারকে চোখেও দেখি নি। তবে আশেপাশে অনেকে বলছে চালক ছোট বাচ্চা। কাউকে বিচার না দিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসছে আমার জামাই।

এদিকে আলীকদমে টমটম সমিতির সভাপতি ফয়েজুর রহমান পুতু স্বীকার করে জানান, আঠারো বছরের নিচে অনেকে ইজি বাইক চালান। তবে অনেকে সমিতির রেজিষ্ট্রেশনভূক্ত নই। আমরা চেষ্টা করবো আঠারো বছরের নিচে কাউকে গাড়ি না চালাতে।

এই বিষয়ে আলীকদম ট্রাফিক ইন্সপেক্টর তরিকুল ইসলাম বলেন, ইজি বাইকের দূর্ঘটনায় শিশু মারা গেছে এই বিষয়টি দুঃখজনক। আমরা আগামীকাল কাল থেকে আঠারো বছরের নিচে কাউকে পেলে ট্রাফিক নিয়ম অনুযায়ী অভিযান পরিচালনা করবো।

আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিসার আতাউল গনি ওসমানী বলেন, আইন শৃঙ্খলা মিটিংয়ে টমটম সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে সতর্ক করা হয়েছে। বলা হয়েছে ১৮ বছরের নিচে কাউকে গাড়ি চালাতে না দেওয়ার জন্য কড়াকড়ি করা হয়েছে। তারপরও যদি কাউকে চালাতে দেখি তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন