আলীকদমে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক যখন কাঠ পাচারকারী

২৮৮ টুকরো গোল সেগুন কাঠ জব্দ

বান্দরবানের আলীকদমে অবৈধ কাঠ পাচারের সময় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের ২৮৮ টুকরো গোল সেগুন কাঠ জব্দ করেছে বনবিভাগ। জব্দকৃত কাঠগুলো মোঃ মিনহাজ উদ্দিন রোকন প্রকাশ রোকন মাষ্টারের। সোমবার রাত সাড়ের নয়টার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের কাকড়ার ঝিরি দূর্গম থেকে অবৈধ কাঠ জব্দ করে তৈন রেঞ্জ।

বনবিভাগ সূত্রে জানা গেছে,অবৈধ কাঠ পাচারের জন্য কাকড়ার ঝিরির দূর্গম এলাকায় বন বিভাগের অনুমতি বিহীন কাঠ পাচার করা হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রায় ২৮৮ টুকরো গোল সেগুন কাঠ জব্দ করে লামা বন বিভাগের আওতাধীন তৈন রেঞ্জ। বন বিভাগ কাকড়ার ঝিরি অভিযানে যাচ্ছেন এমন তথ্য পেয়ে কাঠ পরিবহণের জন্য নিয়ে যাওয়া পাওয়ার টিলার সরিয়ে ফেলেন রোকন মাষ্টার।

তৈন রেঞ্জ কর্মকর্তা শাহাজান চৌধুরী জানান, গোল সেগুন কাঠ জব্দ করা হয়েছে। কিন্তু দূর্গম এলাকায় হওয়ায় রাতে আনা সম্ভব হয়নি, মঙ্গলবার সকালে আনা হয়েছে। কাঠগুলো রাতে বন বিভাগের সদস্যরা পাহারা দেন। বনবিভাগের কোন অনুমতি নেওয়া হয়নি এ কাঠের বিষয়ে।

দীর্ঘদিন ধরে মিনহাজ উদ্দিন রোকন মাংতাই হেডম্যান পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকতার পাশাপাশি চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের বিভিন্ন ঝিরি থেকে অবৈধ পাথর, লাকড়ি ও কাঠ পাচার করছেন। মিনহাজ উদ্দিন রোকনকে গত ২০১৯ সালের আগষ্টে ২ লক্ষ টাকার চেক জালিয়াতি মামলায় আলীকদম থানা পুলিশ তাকে আদালতের নির্দেশে আটক করেন। পরে জামিনে মুক্তি পান ও সাময়িক চাকরিচ্যুত হন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।