আলীকদম বাসস্টেশন-চিউনী পাড়া সড়কে ধস

আলীকদম বাসস্টেশন-চিউনী পাড়া সড়কে ব্যাপক ধস
বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার ১ নং ইউনিয়নের অন্তর্গত বাসস্টেশন থেকে চিউনী পাড়া যোগাযোগ সড়কটির আজিজুর রহমান সর্দ্দারের বাড়ীর সামনের বিরাট অংশ ধস দেখা দিয়েছে ও চলতি বর্ষা মৌসুমে সড়কটি ভাঙ্গনের ফলে নদীতে প্রায় বিলীন হয়ে গেছে।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে,চৈক্ষ্যং নদীর তীরবর্তী যোগাযোগ সড়কটি জয়নাল আবেদিন (প্রকাশ জনু )বাড়ীর সীমানা থেকে আজিজুর রহমানের বাড়ী সীমানা পর্যন্ত প্রায় ২০০ ফুট সড়কটি দুইদিনের বৃষ্টিতে ধসে ও ভেঙ্গে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে স্থানীয়রা পড়েছে চরম ভোগান্তিতে।
এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা ও বটতলী পাড়ার সর্দ্দার ফেরদৌস রহমান বলেন ,সড়কটি চৈক্ষ্যং নদীর তীরবর্তী ও বর্ষাকালে নদীর পানির স্রোতের গতি বেশী বেড়ে যাওয়ার ফলে নদীর পাড়স্থ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। বর্তমানে সড়কটির একাংশে বড় ফাটল ও ধস দেখা দিয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি রক্ষার জন্য স্থানীয়রা সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের আবেদন করার ফলে ২০১৩ সালে সরকারি ভাবে ড্রামসিট ও খুটিঁ দিয়ে নদীর পাড় ও রাস্তা ভাঙ্গন রোধের চেষ্টা করলেও সেই বছরেই বৃষ্টির সময় ড্রামসিট ও খুটিগুলো নদীতে তলিয়ে যায়। এর পর আবারও বিভিন্ন প্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তার নিকট বিষয়টি জানালেও সড়কের ভাঙ্গন প্রতিরোধে কোন কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করেন নি।
আরো জানা গেছে, সড়কটি ভাঙ্গনের ফলে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়রা আজিজুর রহমানের জমির উপর দিয়ে চলাচল করছে এবং এরই মধ্যে গত দুইদিনের বৃষ্টিতে জয়নাল আবেদিনের বাড়ীর সীমা থেকে আজিজুর রহমানের বাড়ীর প্রবেশ পথ পর্যন্ত ফাটল ও ধসে যাওয়ার ফলে হেঁটে যাওয়াও ঝুঁকি ও বিপদজনক বলে মনে করছে স্থানীয়রা।
স্থানীয় আরেক বাসিন্দা ব্যবসায়ী জহিরুল ইসলাম পাহাড়বার্তাকে বলেন,উক্ত সড়ক দিয়ে বটতলি পাড়া ,চিউনী পাড়া,মোস্তাক কার্বারী পাড়া,জাকের পাড়া,রিইয়া পাড়া,মিনথী পাড়া দেল্লু কারবারি পাড়া,ইয়ারি পাড়া,বলু কার্বারী পাড়ারসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় পাঁচ থেকে ছয়শত লোক প্রতিদিন যাতায়াত ,ব্যবসা বাণিজ্য ও কাচামাল সরবরাহ করে। আগে থেকে সড়কটির এক অংশ ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে জমির কাঁদা মাটির উপর গাড়ী বা টমটম নিয়ে যাতায়াতে অনেক সমস্যার হত, তার মধ্যে সড়কের ফাটল ও ধসের ফলে হেঁটে যাওয়া ব্যতীত কোন গাড়ী নিয়ে চলাচল করা সম্ভব হচ্ছে না। এতে করে নিত্য প্রয়োজনীয় কাজ , ব্যবসা বাণিজ্য, যাতায়াত, চিকিৎসা সেবা গ্রহনে স্থানীয়দের নানা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বলে তিনি জানান।
এ বিষয়ে ১ নং আলীকদম ইউনিয়ের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন পাহাড়বার্তাকে বলেন, আমাকে স্থানীয়রা ফাটল ও ধসের বিষয়টি জানানোর পর গতকাল বিকেলে ঘটনাস্থলে আমি গিয়ে ছিলাম এবং উক্ত বিষয় সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে কথা হয়েছে। আশা করছি খুব শীঘ্রই সড়কটির ভাঙ্গন ও ধস রোধ এবং সড়কের সংষ্কার কাজ শুরু হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।