ঈদের বন্ধ শেষেও পর্যটকে মুখরিত বান্দরবান

প্রাকৃতিক দৃশ্য আর বিচিত্রময় জীবন ধারার পাহাড়ী জেলা বান্দরবান। প্রকৃতির নির্মল স্বাদ পেতে পর্যটকদের কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থান বান্দরবান।

পাহাড়-পর্বত ছাড়াও এখানে রয়েছে অসংখ্য ঝিরি-ঝর্ণা,মেঘলার লেক, নজরকারা স্বর্ণমন্দির, নীলাচল, নীলগিরি শৈলপ্রপাত, চিম্বুকসহ সরকারী-বেসরকারী অনেকগুলো পর্যটন স্পট। সবকিছু মিলিয়ে ঈদের টানা ছুটি শেষে ও ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকের পদভারে এখন ও মুখর হয়ে উঠছে পাহাড়ী জেলা বান্দরবান। পুরো শহর জুড়েই পরিণত হয়েছে মিলন মেলায়। পর্যটকের বাড়তি চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে হোটেল-মোটেল,গেস্ট হাউজ,রেস্টহাউজ মালিকসহ পর্যটনশিল্পে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী, প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বান্দরবানের নীলাচল পর্যটনকেন্দ্রে ভ্রমণে আসা পর্যটক মো:আলম জানান,পার্বত্য এলাকা অনেক সুন্দর,পাহাড়ী ঝর্ণা ও উঁচুনিচু পাহাড় সৌন্দর্য আরও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য আমাদের মনকে নতুনভাবে জাগিয়ে তুলে,সত্যিই অসাধারণ বান্দরবানের প্রাকৃতিক দৃশ্য।

বান্দরবানের মেঘলায় বেড়াতে আসা পর্যটক শাহআলম বলেন,বান্দরবানের সৌন্দর্য্য অতুলনীয়। বান্দরবানের বিনোদন কেন্দ্রগুলো বেড়াতে আমাদের অনেক মজার লাগে ।আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে প্রায়ই বান্দরবান ভ্রমনে আসি এবং পাহাড়,নদী আর ঝর্ণার পাশে থেকে সময় কাটাই।

বান্দরবানের হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো:সিরাজুল ইসলাম বলেন,ঈদের এই ছুটিতে পর্যটকের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে,এবছর ঈদে বান্দরবানে অনেক পর্যটক আসছে দেখলাম। বান্দরবানের নাম যেভাবে ছড়িয়ে পড়ছে আশা করি আগামীতে আরো পর্যটক এই জেলায় আগমন করবে এবং জেলার বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ভ্রমন করবে এবং জেলার সুনাম দেশ বিদেশে ছড়িয়ে যাবে।

বান্দরবানের হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো:সিরাজুল ইসলাম আরো বলেন,পরিস্থিতি অনুকুল হওয়ায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রচুর পর্যটকদের আগমন ঘটেছে এই জেলায় এবং দেশের রাজনৈতিক পরিবেশে স্থিতিশীল থাকলে সামনে আরো পর্যটক আসবে এখানে এমটাই আশা করি।

বান্দরবানের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার জানান,পর্যটকরা যাতে বান্দরবান জেলায় নিরাপদে ভ্রমন করতে পারে সে লক্ষে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে,এছাড়া ও টুরিস্ট পুলিশ রয়েছে,তারা সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে।

তিনি আরো জানান, বান্দরবান এসে কোনো পর্যটক যাতে কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হয় সেই দিকে আমরা পুলিশ প্রশাসন সজাগ দৃষ্টি রাখছি।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।