উপজেলা নির্বাচনেও বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে বেকায়দায় খাগড়াছড়ি আওয়ামী লীগ

পঞ্চম উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী দেয়াকে কেন্দ্র করে খাগড়াছড়ি আওয়ামীলীগে ফের কোন্দলের সৃষ্টি হয়েছে। খাগড়াছড়ির রামগড় ও মাটিরাঙা উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের বিপরীতে বিদ্রোহ প্রার্থী হতে অনেকে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে, ফলে বেকায়দায় পড়েছে আওয়ামীলীগ।
১৮ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষদিনে রামগড়ে আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরার বিপরীতে বর্তমান উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল কাদের, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক, কাজী নুরুল আলম আলমগীর ও পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক রফিকুল আলম কামাল বিদ্রোহ প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে। একই ভাবে মাটিরাঙা উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী রফিকুল ইসলামের বিপরীতে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অবস্থান নিয়েছে।
মাটিরাঙা উপজেলার বিদ্রোহী প্রার্থী তাজুল ইসলাম জানান,কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অমান্য করে জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রণ বিক্রম ত্রিপুরা ও কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া অযোগ্য একজন প্রার্থীকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার প্রতিবাদে তিনি প্রার্থী হয়েছেন। শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে থাকার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন তিনি।
রামগড় উপজেলার আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল কাদের জানান,দল মনোনীত প্রার্থীকে নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী চায় না। জনমতের প্রতি সম্মান রেখে তিনি সহ বাকী আওয়ামীলীগ নেতারা প্রার্থী হয়েছেন।
খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রণ বিক্রম ত্রিপুরা জানান, যারা দলীয় প্রতীকের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে নির্বাচন করতে মনোনয়ন জমা দিয়েছে তাদের সাথে আলোচনা করা হবে। এরপরও কেউ দলীয় প্রতীকের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলে গঠনতন্ত্র মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
প্রসঙ্গত, রামগড় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা নিকট আত্মীয়। ২০১৬ সালে রামগড় পৌরসভা নির্বাচনেও নৌকা প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করে বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা। সে সময় বিদ্রোহী প্রার্থী কাজী শাহজাহান রিপনের কাছে পরাজিত হয়। পৌর নির্বাচনে প্রার্থীতা মনোনয়নের জেরে খাগড়াছড়ি ও রামগড়ে দীর্ঘ আড়াই বছর আওয়ামীলীগে বিভক্তি ছিল। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে বিভক্তি কমে আসে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।