উপজেলা নির্বাচন নিয়ে বান্দরবানের ভোটারদের আগ্রহে ভাটা

পাহাড়ী জেলা বান্দরবান। ৩৩ টি ইউনিয়ন ২ টি পৌরসভা ও ৭ টি উপজেলা নিয়ে বান্দরবান জেলা। আর এই ৭টি উপজেলায় এবার হচ্ছে দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচন। কোনো উপজেলাতেই বিএনপির প্রার্থী না থাকলেও আছে আঞ্চলিক দলের প্রার্থী। নাগরিক সমাজ বলছে, সব দলের অংশগ্রহণ না থাকায় নির্বাচনকে ঘিরে মানুষের নেই তেমন একটা আগ্রহ।
পাহাড়ের অন্যান্য জেলার থেকে বান্দরবান জেলার রাজনীতির পরিস্থিতি ভিন্ন। ১৮ মার্চ পাহাড়ী এই অঞ্চলে উপজেলা পরিষদের ভোট। ব্যানার-পোস্টার চোখে পড়লেও নির্বাচন নিয়ে খুব একটা উৎসাহ নেই সাধারণ মানুষের। তারপরও ভোটারদের চাওয়া, যিনিই নির্বাচিত হবেন মনোযোগ দেবেন অবকাঠামো ও সামাজিক উন্নয়নে।
সাধারণ ভোটার মো.আনোয়ার হোসেন বলছেন, আগে আমরা দেখতাম নির্বাচন আসলে চার পাশে নির্বাচনের একটি পরিবেশ বিরাজ করে কিন্তু ৫ম উপজেলা নির্বাচন কাছে আসার পর ও বান্দরবানের ভোটার বা আমাদের মাঝে তেমন কোন উৎসাহ নেই।
সাধারণ ভোটার সারমিন আক্তার বলছেন, আমরা কোন দল মত বুঝিনা, আমরা যে প্রার্থী আমাদের সামাজিক ও অবকাঠামোর দিকে নজর দিয়ে আমাদের উপজেলা কে এগিয়ে নিতে পারবে আমারা থাকা প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত করতে চাই।
বান্দরবানের জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন, বান্দরবানের ৭ উপজেলায় ২য় ধাপে আগামী ১৮ মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে । ইতিমধ্যে নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এবার ৭ উপজেলা ১৭ চেয়ারম্যান, ১৯ পুরুষ ভাইস-চেয়ারম্যান, ১৪ মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান সহ মোট ৫০ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন।
আলীকদম উপজেলা পরিষদের সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান আবুল কালাম বলেন,প্রশাসনিক জটিলতার কারণে উপজেলা চেয়ারম্যানদের কাজ করার ক্ষমতা খুবই সীমিত। তাই যার কারনে অনেক কাজ উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে করতে পারিনি। কারণ সরকারের কাজের কিছু সীমাবদ্ধতার ও বাজেটের কারনে সকল কাজ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নাই।
নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা মনে করেন, উপজেলা পরিষদকে স্বশাসিত ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে এগিয়ে নিলে চেয়ারম্যানদের কাজের পরিধি বাড়বে। তবে ভোটকে সামনে রেখে প্রার্থীরা দিচ্ছে প্রতিশ্রুতি।
লামা উপজেলার আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তফা জামাল বলছেন,নির্বাচিত হলে এলাকার সামাজিক,অবকাঠামো ও সার্বিক উন্নয়নের মাধ্যমে লামা উপজেলাকে মডেল উপজেলায় পরিনত করবো।
প্রসঙ্গত, এবার ৭ উপজেলা ১৭ চেয়ারম্যান,১৯ পুরুষ ভাইস-চেয়ারম্যান,১৪ মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান সহ মোট ৫০ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন। বান্দরবান জেলায় সর্বমোট ২লক্ষ ৪৬ হাজার ১শত ৮৪ জন ভোটার ১৭৬টি কেন্দ্রে ভোট প্রদানের মাধ্যমে আগামী ১৮ মার্চ ৭ উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ভাইস- চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবে। এবার দ্বিতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদের নির্বাচন হবে আগামী ১৮ মার্চ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।