এবার ভয়াবহ শীত পড়বে দেশে !

এবার শীতের তীব্রতা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে, ভয়াবহ শীত পড়বে দেশে, আর তিন পার্বত্য জেলায় শীত কেমন পড়বে তা অনুমান করে নিতে পারেন।
শীতের আগমনী আসতে শুরু করেছে উত্তরের হাওয়ায়। উত্তরের হাওয়া বলে দিচ্ছে চলে এসেছে শীতের মহারাণী। হেমন্তের শিশির বিন্দুতে সাদা কাশফুলের রঙও এখন বিবর্ণ হয়ে আসছে। ঢাকায় এখনও ওইভাবে শীত না পড়লেও গ্রামাঞ্চলে শীত পড়তে শুরু করেছে। সন্ধ্যার পরপরই কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় বন্দী হয়ে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের বিস্তীর্ণ জনপদ। তাপমাত্রা কমছে সারাদেশেই।
বুধবার (২৪ অক্টোবর) দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল শ্রীমঙ্গলে ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কাছাকাছি আসা এবং সন্ধ্যায় বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে গত কয়েক বছরের তুলনায় এবার দুই মাস আগেই উত্তরাঞ্চলে শীত এসে গেছে।
বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, মেঘে ঢাকা পড়ে যাচ্ছে দেশের উত্তরাঞ্চল। আর তাই বাতাসের তাপমাত্রা কমেছে। ফলে শীতের আমেজ পাওয়া যাচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তাই অসময়ে শীত কিংবা গরম পড়ছে। তবে কনকনে শীত আসতে এখনো বেশ বাকি আছে।
সাধারণত বাংলাদেশে ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শীতের মৌসুম ধরা হয়। কিন্তু সাম্প্রতিককালে এই সমীকরণ পাল্টে গেছে। এই তিন মাস মিলে শীতকাল হলেও গত কয়েক বছর অক্টোবরের শুরু থেকেই আসতে শুরু করছে শীতের আমেজ। এ সময় সূর্য দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থান করে বলে বাংলাদেশ ও এর পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে সূর্যের রশ্মি তির্যকভাবে পড়ে। ফলে কমতে থাকে তাপমাত্রা, অনুভূত হয় শীত।
আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, এটা প্রকৃতির বিরূপ প্রভাবের কারণে হচ্ছে। তাই কার্তিকেই ঠাণ্ডা বাতাস বইছে সর্বত্র। ভারতঘেঁষা উত্তরাঞ্চলের কয়েক জেলায় দিনেও বইছে হিমেল হাওয়া। গ্রামাঞ্চলে কুয়াশার সঙ্গে শিশির পড়ছে।
আবুল কালাম জানান, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে গ্রামে শীত অনুভূত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আর মধ্য নভেম্বর শীত টের পেতে পারে রাজধানীবাসীও। তবে শীতের প্রকোপ দেখা দেবে আরও দেরিতে।
আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের মন্তব্য, প্রশান্ত মহাসাগরে লা নিনার উদ্ভব হলে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি ঠাণ্ডা ও বেশি বৃষ্টি হয়। পূর্ব প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সমুদ্রপৃষ্ঠের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি নিচে নেমে গেলে ব্যতিক্রমী আবহাওয়া লক্ষ্য করা যায়। যার প্রভাব অনুভব করে গোটা বিশ্ব।
আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাস, চলমান আবহাওয়ার গতি-প্রকৃতি দেখে মনে হচ্ছে, এবার শীতের তীব্রতা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে। ভয়াবহ শীত পড়বে দেশে। গত বছরের ৮ জানুয়ারি ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে এসেছিল তাপমাত্রা। এবার তা আরও কমে আসতে পারে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।