করোনায় গরীবের ভরসাস্থল ছিলেন মন্ত্রী বীর বাহাদুর !

যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে ভরসার কেন্দ্রে থাকেন সাংসদ। সবাই তাঁর কাছে ছুটে যান। সব দুর্যোগে ত্রাণ বিতরণেও নেতৃত্ব দেন সাংসদ। তবে এবার ব্যতিক্রম । করোনার হিসেবে পাল্টে গেছে সব কিছু। প্রাকৃতিক পরিবেশ, রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা, সমাজ ব্যবস্থার প্রতিটি স্তরে প্রভাব পড়েছে করোনায়। করোনার শুরু থেকেই ভয়ে এলাকায় থাকেননি অনেক সাংসদ, সেক্ষেত্রে ব্যতিক্রম পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।

করোনার ভয়কে দূরে ঠেলে তিনি ছুটেছেন পাহাড়ের গ্রামগুলোতে। যেখানেই অভাবী মানুষ আছে, সেখানেই চাল, ডাল, তেল ও লবণ পৌঁছে দিয়েছেন মন্ত্রী বীর বাহাদুর । করোনার শিকার হওয়া পরিবারগুলোর কাছে মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার একপর্যায়ে নিজেই আক্রান্ত হয়েছেন উশৈসিং ।

দৈনিক প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি বুদ্ধজ্যোতি চাকমা জানান, করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকে উনি তার সংসদীয় এলাকায় ছিলেন । বান্দরবানের মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। অনেক সেবামূলক কাজ করেছেন । আরেকটু সর্তকতা অবলম্বন করলেই তার করোনা হত না । শেষ পর্যন্ত তিনিও করোনাই আক্রান্ত হলেন ।

স্থানীয়রা বলছেন, দেশে করোনার মহামারীর শুরু থেকে টানা আড়াই মাস এলাকায় অবস্থান করেছেন মন্ত্রী বীর বাহাদুর। করোনার শুরুতেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রায় সাড়ে চার হাজার পরিবারকে দিয়েছেন চাল, ডাল, তেল সহ আরো অনেক কিছু । নিজ এলাকার গরিব মেহনতি মানুষের ঈদের খুশি বজায় রাখতে দিয়েছেন সেমাই,চিনি দুধ ও ছোলা সহ আরো অনেক কিছু । এর সংখ্যা কম নয়, প্রায় সাড়ে তিন হাজার মানুষকে দিয়েছেন ঈদ উপহার ।

সময় টিভি ও জনকন্ঠের জেলা প্রতিনিধি এস বাসু দাশ বলেন, করোনার সময়ের শুরু থেকে নিজ এলাকায় মানুষের পাশে থেকে এভাবে সরকারের কোন মন্ত্রী ত্রাণ বিতরণ করেছে, আর মানুষের সংস্পর্শে থাকতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এমন রেকর্ড নেই।

এছাড়াও করোনা মাহামারীর সময় জেলার থানচি বাজারের প্রায় ২০০টি দোকান পুড়ে যায় । ঘরে বসে থাকেননি তিনি। করোনা ভয়কে ঠেলে ছুটে গেছেন থানচিতে ত্রাণ নিয়ে দাঁড়িয়েছেন অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে ।


বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য কাঞ্চন জয় তঞ্চঙ্গ্যা
জানান, ১৯৯১ সাল থেকেই উনি জনবান্ধব । জনবান্ধব বিধায় উনি ৬ বারের নির্বাচিত সাংসদ । উনি যে কতটা জনবান্ধব সেটা করোনার মহামারীতে আরো একবার প্রকাশ পেল । আর উনি জনবান্ধব না হলে তো ত্রাণ কার্যক্রমে কখনোয় আক্রান্ত হত না ।

জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, টানা ছয়বার আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বীর বাহাদুর উশৈসিং। ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত থাকা অবস্থায় ১৯৮৯ সালে স্থানীয় সরকার পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন বীর বাহাদুর। ১৯৯১ সালে বান্দরবান (৩০০ নং) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

আরো জানা যায়, বীর বাহাদুর উশৈসিং ১৯৯১ সাল থেকে টানা ছয়বার ( ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮) বান্দরবান থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের অধীনে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান তিনি। গত বছর ওই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয় তাকে। জনবান্ধব নেতা হওয়ায় প্রতিবারই বান্দরবানের সংসদীয় নির্বাচনে তিনি জয়ী হন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।