করোনা কালে যেভাবে বান্দরবানের মানুষের পাশে পার্বত্য জেলা পরিষদ

কোভিড-১৯ (করোনা ভাইরাস) জনিত উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় দুঃস্থ, দরিদ্র ও কর্মহীন লোকদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণের জন্য ‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার’ হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রাপ্ত ত্রাণসামগ্রী পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র নির্দেশনা ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের মাধ্যমে পৌর/ইউনিয়ন পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম চলমান রয়েছে, আর তা তুলে ধরা হলো।

ত্রাণ তৎপরতা
প্রথম দফায় অর্থাৎ মার্চ-এপ্রিল ২০২০ সালে বান্দরবান পার্বত্য জেলার ০২ টি পৌরসভাসহ ৩৩ টি ইউনিয়নের ২১,৬৫৭ পরিবারের মাঝে মোট ১৮৩.৪৭ মেট্রিকটন চাউল বিতরণ করা হয়েছে। দ্বিতীয় দফায় জুন ২০২০ সালে বান্দরবান পার্বত্য জেলার দু’টি পৌরসভায় ৫২৫০ পরিবার ও ৩৩ ইউনিয়নে ২৪,৭৫০ পরিবার মোট ৩০,০০০ পরিবারের মাঝে ৩০০.০০ মেট্রিকটন চাউল বিতরণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। পার্বত্য জেলা পরিষদের সহযোগীতায় জেলার বিভিন্ন দূর্গম এলাকায় বেসামরিক প্রশাসনের অনুরোধক্রমে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টারে করে ৩শত ৬০টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পরিবারের জন্য সরকারী ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য উদ্ধুদ্ধকরন
বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ ভবন, সকল ন্যস্তবিভাগ, বান্দরবান পৌসভায় ০৮ টি গুরত্বপূর্ণ পয়েন্ট ও ০৭ টি উপজেলায় ০২ টি করে পয়েন্টে মোট ২২ টি ১০০০ লিটারের গাজী ট্যাংক, বান্দরবান সদর হাসপাতাল, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ০৬ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসমূহেও সাবান দিয়ে হাত ধৌত করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গঠন করা হয় ৩০০জনের সেচ্ছাসেবক দল

মোট ০৯ টি সংগঠন যথাক্রমে বান্দরবান যুব রেড ক্রিসেন্ট, বান্দরবান স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ মারমা স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, বান্দরবান জেলা কমিটি, প্রথম আলো বন্ধু সভা, বান্দরবান মেডিকেল স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ খিয়াং স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ম্রো স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, বিডি ক্লিন বান্দরবান, বাংলাদেশ তঞ্চঙ্গ্যাঁ স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার ফোরাম এর সদস্যদের সমন্বয়ে স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করে সিভিল সার্জন, বান্দরবানের নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক দল ২৪ মার্চ ২০২০ বিকালে জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে কোভিড-১৯(করোনা ভাইরাস) প্রতিরোধে করণীয় বিষয় ও এন্টিসেপটিক মিশ্রণ সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে মোট ৩০০ জন স্বেচ্ছাসেবক অংশগ্রহণ করেন।
প্রশিক্ষণ প্রদানের পর পরই স্বেচ্ছাসেবকদের মাঝে প্রোটেকটিভ কোট, গামবোট, মাস্ক, গ্লাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, স্প্রেমেশিন ও ব্লিচিং পাউডার (৩০০টি প্রোটেকটিভ কোট, ৩০০ জোড়া গামবোট, ৩০০ টি মাস্ক, ৩০০ জোড়া গ্লাভস, ৩০০ টি হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ৯০ টি স্প্রেমেশিন ও ১০০ কেজি ব্লিচিং পাউডার)। ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখ হতে স্বেচ্ছাসেবক দলটি উপ-দলে বিভক্ত হয়ে পৌর এলাকাসহ ০৭ টি উপজেলায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাসমূহে এন্টিসেপটিক স্প্রেকরণ, পোস্টার লাগানো, লিফলেট বিতরণ, হ্যান্ডমাইক ব্যবহারের মাধ্যমে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে করণীয় বিষয়সমূহ প্রচারণা ও গ্রামে গ্রামে উঠান বৈঠক করে সচেতনতামূলক বার্তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

প্রচার-প্রচারণাতে পার্বত্য জেলা পরিষদ
করোনা সচেতনতামূলক বার্তা পৌঁছে দিতে মোট ২০,০০০ কপি লিফলেট ও ২০০০ কপি পোস্টার মুদ্রণ করা হয়। উল্লেখ্য, মারমা, ত্রিপুরা, ম্রো ও বম ভাষায় লিফলেট অনুবাদ করে গ্রামে গ্রামে সংশ্লিষ্ট সম্প্রদায়ের ছাত্র সংগঠনের মাধ্যমে প্রচারণার কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে।

চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশে পার্বত্য জেলা পরিষদ

কোভিড-১৯ প্রতিরোধ কার্যক্রম পরিচালনা ও এ রোগে আক্রান্তদের চিকিৎসাসেবা প্রদানের জন্য নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স ও স্টাফদের আইসোলেশনে রাখার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। চিকিৎসকদের পর্যটন মোটেলে আইসোলেশন করে রাখা হচ্ছে। আইসোলেশনে থাকাকালীন সময়ে তাদের খাদ্য সরবরাহের জন্য ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগকে মোট ৫,০০,০০০/-(পাঁচ লক্ষ মাত্র) টাকা প্রদান করা হয়েছে।

যেসব প্রতিষ্ঠান ও পেশাজীবিদের হাতে অনুদান
কোভিড-১৯ প্রতিরোধ কার্যক্রমে নিয়োজিত পুলিশ বিভাগ, বান্দরবানের সদস্যদের ব্যবহারের নিমিত্তে সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয় করার জন্য মোট ২,০০০০০/-(দুই লক্ষ) টাকা অনুদান হিসেবে প্রদান করা হয়েছে। কোভিড-১৯ প্রতিরোধকল্পে বিভিন্ন কার্যক্রম তথা সাবান দিয়ে হাত ধৌত করার ব্যবস্থা, ব্লিচিং পাউডার, মাস্ক, গ্লাভসসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয় করার জন্য বান্দরবান পৌরসভাকে মোট ১,০০০০০/-(এক লক্ষ) টাকা অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

বান্দরান জেলার ৭২২ টি মসজিদের ঈমাম-মোয়াজ্জিন-দের মোট ৭,২২,০০০/-(সাত লক্ষ বাইশ হাজার মাত্র) টাকা অনুদান প্রদান করা হয়েছে। বান্দরবান জেলার ২৮১ টি বৌদ্ধ বিহারসমূহে খাদ্য-দ্রব্য ক্রয় করার লক্ষে মোট ৬,৫৪,২১৪/-(ছয় লক্ষ চুয়ান্ন হাজার দুইশত চৌদ্দ মাত্র) টাকা অনুদান হিসেবে প্রদান হয়েছে। কোভিড-১৯ এর আক্রমণ রোধকল্পে রোয়াংছড়ি উপজেলাধীন ০৪ টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, মেম্বার ও গ্রাম পুলিশের জন্য সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয়ের নিমিত্তে মোট ৮০,০০০/-(আশি হাজার মাত্র) টাকা অনুদান হিসেবে প্রদান হয়েছে।

সাংবাদিকদের পাশে
চলমান করোনা ভাইরাস এর দূর্যোগকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলায় বান্দরবান জেলাব্যাপী কর্মরত ১৬৬ জন সাংবাদিক/রিপোর্টার-দের মোট ৩,৩২,০০০/-(তিন লক্ষ বত্রিশ হাজার মাত্র) টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের জন্য যা কেনা হয়েছে
এছাড়াও কোভিড-১৯(করোনা ভাইরাস) বিস্তার রোধকল্পে মাননীয় মন্ত্রী, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা ও সিভিল সার্জন, বান্দরবান এর চাহিদা মোতাবেক বান্দরবান সদর হাসপাতালসহ প্রতিটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ করোনা স্যাম্পল সংগ্রহের জন্য নতুন করে ০৮ টি বুথ স্থাপন এবং অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর (১০ টি), অক্সিজেন সিলিন্ডার(৪০ টি), ইনজেকশন অ্যালেক্সা ৬০ মিলিগ্রাম(৫০০ টি), পালস অক্সিমিটার (৫০ টি), সার্জিক্যাল গ্লাভস(৫০০০ জোড়া), সার্জিক্যাল মাস্ক(৫০০০ টি), হ্যান্ড সেনিটাইজার(৫০০০ টি), নাসেল কনোলা ও অক্সিজেন মাস্ক(১০০ টি) প্রদান করা হচ্ছে।

তাছাড়া পরিস্থিতির বিবেচনায় স্বাস্থ্য বিভাগের চাহিদা মোতাবেক প্রয়োজন অনুযায়ী সুরক্ষা সামগ্রী আরো সরবরাহ করা হবে মর্মে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে এবং করোনা সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজ ও আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার্থে অনুদান প্রদান অব্যাহত রয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।