করোনা সংক্রামনের ঝুঁকি থাকায় বান্দরবান সীমান্তে সতর্ক বিজিবি

করোনা ভাইরাস সংক্রামনের ঝুঁকি থাকায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে সতর্কতা ও টহল জোরদার করেছে বিজিবি। নাইক্ষ্যংছড়ি ১১,বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ান (বিজিবি) সীমান্তে মিয়ানমারের নাগরিকদের অবৈধ অনুপ্রবেশ ও করোনা ভাইরাস সংক্রমণ জীবানু বহন করে কেউ যেন দেশে আসতে না পারে সেই লক্ষ্যে সীমান্তে কঠোর নজরধারী ও টহল জোরদার করা হয়েছে।

১১ বিজিবির জোন অধিনায়ক লে: কর্ণেল আসাদুজ্জামান খাঁন জানান,বিজিবি জোয়ানেরা সীমান্তের সমস্ত বিওপিগুলোতে সর্তকতার সাথে দায়িত্ব পালন করছে, সীমান্তের ওপার থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ জীবানু যেন বহন করে এদেশে না আসে, সেই সর্তকতা নিয়ে সীমান্তের দু,দেশের আসা-যাওয়া নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

এদিকে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নের ২৪ জন প্রবাসী সনাক্তের তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। তার মধ্যে ৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন, এদের সকলেই বিদেশ ফেরত প্রবাসী।

শনিবার (২১ মার্চ) দুপুরে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: আবু জাফর মো,ছলিম এ তথ্য নিশ্চিত করে তিনি বলেন, হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা মধ্যে রয়েছে ৮ জন। তাদের নিজ বাসস্থানে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বাকী ১৬ জন বিদেশ ফেরতের ১৪ দিন অতিক্রম হওয়াতে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখার প্রয়োজন নেই বলে জানান।

উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের সচেতনতামূলক মাইকিং করা হচ্ছে। উপজেলার বিভিন্ন নিত্যপণ্য নিয়ন্ত্রণের অভিযানও অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া উপজেলার ১০সদস্য বিশিষ্ট করোনা প্রতিরোধ কমিটি করা হয়েছে। কমিটির মাধ্যমে উপজেলার ৫ ইউনিয়নে করোনা ভাইরাস বিষয়ে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন কচি জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে­ক্সে এমন নির্দেশনা দেয়া আছে বাহিরের কোন রোগী হাসপাতালে প্রবেশের আগে বাহিরের হ্যান্ড ওয়াশ, মাক্স ব্যবহার করে পরিস্কার পরিছন্নতা বজায় রেখে প্রবেশ করতে।

আরও পড়ুন
Loading...