কাপ্তাইয়ের কর্নফুলি ডিগ্রি কলেজের ডরমটরিতে ইউএনওর হানা : আটক ৩জন

কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলি ডিগ্রী কলেজের ডরমটরিতে অসামাজিক কাজ করার সময় আটক তিনজন
রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার ঐতিহ্যবাহী কর্ণফুলি ডিগ্রী কলেজের ডরমটরিতে অসামাজিক কাজ করার সময় আজ রবিবার মধ্যরাতে দুই পতিতাসহ উলঙ্গ অবস্থায় একজন নির্মাণ শ্রমিককে আটক করেছে কাপ্তাই থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলেন নির্মান শ্রমিক শেখ ফরিদ(২৬), পতিতা মনি(১৭) এবং রুপা(২৫)।
কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমীন মধ্যরাতে নিজে উপস্থিত থেকে এই অভিযানের নেতৃত্ব দেন। অভিযানে কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মো: নুর সহ থানার পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমীন অটক হওয়া শেখ ফরিদকে (২৬) তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড, মনি (১৭) ও রুপাকে (২৫) এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।
কাপ্তাই থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মো: নুর জানান, আটক হওয়া নির্মাণ শ্রমিক মো. শেখ ফরিদ কর্ণফুলি কলেজ সংলগ্ন আব্দুল মান্নানের পুত্র। সে কর্ণফুলি কলেজের নির্মাণ কাজে নিয়োজিত রয়েছে। ঈদ উপলক্ষে তার সহকর্মীরা বাড়িতে গেলে ঠিকাদার অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা কর্তৃক সাইডের কাজ দেখাশুনা করতে তাকে দায়িত্ব দেওয়া হলে এই সুযোগকে কাজে লাগায় সে। তার কাছে কলেজের ডরমটরির চাবি থাকায় দুই পতিতাকে সহজেই সেখানে নিয়ে মধ্যরাতে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হয় সে। এসময় খাগড়াছড়ির নবিনগরের মো. আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে মনি (১৭) সহ খাগড়াছড়ির নবিনগরের শুভ দাসের কন্যা রুপা দাস (২৫) নামক দুই পতিতাকে ঘটনাস্থল হতে আটক করা হয়।
কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমীন জানান, কর্ণফুলি কলেজের ডরমটরিতে মধ্যরাতে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অপরাধে তাদের আটক করে শেখ ফরিদকে ৩ মাসের জেল ও দুই পতিতাকে ১মাস করে জেল দেওয়া হয়েছে। তাদের আজ আজ রবিবার সকালে রাঙামাটি আদালতে প্রেরণ করা হবে। এই ঘটনায় কলেজের নৈশ্য প্রহরীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। ডরমটরিতে তালা দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
কর্ণফুলি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ এ.এইচ.এম বেলাল চৌধুরী বলেন, কলেজের নির্মাণ কাজের সহযোগিতার জন্য কলেজের একটি অপ্রয়োজনীয় কক্ষ ভাড়া চায় কলেজের নির্মাণ কাজের ঠিকাদার অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা। তাকে কাজের সহযোগিতার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ ডরমটরি ভাড়া দেন। ঈদে সকলে বাড়িতে যাওয়ায় হয়তো এই সুযোগ নিয়েছে সে।
গত বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্য রাতে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের বি এম সরকারি প্রাথমিক উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিযান চালিয়ে স্কুলের ক্লাসরুম থেকে জিনিশপত্র, যৌন উত্তেজক ঔষুধ এবং কনডম উদ্ধার ও স্কুলের নৈশ প্রহরী শফিকুল ইসলামকে আটক করে কারাদন্ড দিয়ে আলোচনায় আসেন কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ রুহুল আমিন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।