কাপ্তাইয়ে চলন্ত গাড়িতে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা : ২ জন আটক

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনা থানাধীন বাঙ্গালহালিয়ায় চলন্ত গাড়িতে একা পেয়ে আদিবাসী কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টা করায় শাহিন ও শওকত নামের ২জন সিএনজি চালককে আটক করেছে চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশ। গত মঙ্গলবার (২০ই অক্টোবর) রাতে পোনে ১০টায় বাঙ্গালহালিয়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়েছে।

চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশ সুত্রে জানা যায়, বাঙ্গালহালিয়া থেকে চন্দ্রঘোনা ফেরার পথে ডাক বাংলো এলাকায় চলন্ত গাড়িতে একা পেয়ে সিএনজি চালক শওকত হোসেনের সহযোগিতায় ধর্ষণের চেষ্টায় কলেজ ছাত্রীর শরীরে হাত দেয় সিএনজি চালক শাহিন। বুঝতে পেরে ওই কলেজছাত্রী চলন্ত গাড়ি থেকে লাফ দিয়ে সড়কে গড়িয়ে পড়ে আহত হয়। এসময় পেছন থেকে গণপরিবহণ আসলে দ্রুত ঘটনাস্থল ছেড়ে পালায় সেই দুই চালক।

পরে ভুক্তভোগী কলেজছাত্রী বাঙ্গালহালিয়া সেনা ক্যাম্পে অভিযোগ করলে সেনাবাহিনী, রাইখালী-বাঙ্গালহালিয়া সিএনজি মালিক সমিতি, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় মঙ্গলবার রাত পোনে ১০টায় তাদের আটক করে চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশ। আটক সিএনজি চালক মো. শাহিন রাঙ্গুনিয়ার কোদালা এলাকার মৃত আবু বকর সিদ্দিকের ছেলে এবং আটক শওকত হোসেন পাশ্ববর্তী রাঙ্গুনিয়ার সন্দিপ পাড়া এলাকার মো. আকবর হোসেনের ছেলে।

চন্দ্রঘোনা থানা অফিসার ইনচার্জ ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, ‘ধর্ষণের চেষ্টা’য় আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে, আজ বুধবার তাদের রাঙামাটি আদালতে প্রেরণ করা হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।