কাপ্তাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসকারীদের সরে যেতে মাইকিং : খোলা হয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র

কয়েক দিনের টানা প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসের ঝুঁকি থাকায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসরত মানুষজনকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়া এবং আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে অবস্থান নেওয়ার জন্য কাপ্তাই উপজেলা প্রশাসন এর উদ্যোগে মাইকিং করে অবহিত করা হচ্ছে। গত রবিবার এবং আজ সোমবার উপজেলা প্রশাসন এর উদ্যোগে তথ্য অফিস কর্তৃক দিনব্যাপী সতর্কীকরণ মাইকিং কার্যক্রম চালিয়ে জনগনকে নিরাপদ স্থানে আসার অনুরোধ জানানো হচ্ছে।
কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল জানান, কাপ্তাই নতুনবাজার ঢাকাইয়া কলোনি, চন্দ্রঘোনার মিতিঙ্গাছড়ি, ওয়াগ্গার সাফছড়ি, মুরালীপাড়া, কুকিমারা, রাইখালির কারিঘর পাড়া, ডংনালা সহ যেসব জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণভাবে পাহাড়ের পাদদেশে যারা বসবাস করছেন তাদেরকে আশ্রয় কেন্দ্রে যাবার জন্য মাইকিং করে এবং স্হানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে অনুরোধ করা হচ্ছে।
তিনি আরো জানান, ইতিমধ্যে সব কয়টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ২৪ ঘন্টা খোলা রাখার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে, যাতে জনগন এইসব আশ্রয় কেন্দ্রে এসে আশ্রয় নিতে পারে।
সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, কাপ্তাই এর অনেক জায়গায় পাহাড়ের পাদদেশে মৃত্যুর ঝূকি নিয়ে বসবাস করছে শ’ শ’ পরিবার। ফলে মাত্রাতিরিক্ত প্রবল বর্ষণ হলে ভূমিধ্বসে যেকোন সময় লন্ডভন্ড হয়ে যেতে পারে কয়েক’শ ঘরবাড়ি, পাশাপাশি প্রাণহানি ঘটার সম্ভাবনাও রয়েছে।
উল্ল্যেখ যে, ২০১৭ সালের ১২ ও ১৩ জুন অবিরাম বৃষ্টির ফলে কাপ্তাই এ পাহাড় ধ্বসে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।