কাপ্তাইয়ে শিক্ষা সফরের বাস দূর্ঘটনায় আহত ৮ জন

কাপ্তাইয়ে সড়ক দূর্ঘটনার কবলিত বাস
রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার শীলছড়ি এলাকার হাজির টেকে এক পথচারী শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে আজ শুক্রবার দুপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় বাস চালক সহ মোট ৮জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে তিনজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
কাপ্তাই থানা সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার কমলাদিঘির স্টুডেন্ট কেয়ার প্রি-ক্যাডেট স্কুলের বার্ষিক শিক্ষা সফর ২০১৮ উপলক্ষে স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রীরা কাপ্তাইয়ে ভ্রমণে আসে। এসময় তারা কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলী পেপার মিল্স লিমিটেড, লেক প্যারাডাইস, শেখ রাসেল এভিয়ারী এন্ড ইকো পার্কে ভ্রমণ করার কথা ছিল। ইতিমধ্যে নৌবাহিনী পরিচালিত পিকনিক স্পট লেক প্যারাডাইসে ভ্রমণ শেষ করে শেখ রাসেল এভিয়ারী এন্ড ইকো পার্কে যাওয়ার পথে এক শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে তাদের বাসটি (চট্টমেট্রো-ভ ০৫০২৩৮) রাস্তার ডানে মোড় কাটলে একটি গাছের সাথে গিয়ে ধাক্কা খায়। পরে গাড়ির ধাক্কায় গাছটি বাসের গ্লাস ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে যায় এবং গাড়ির সামনের সিংহভাগ বেকে যায়।
ঘটনাস্থলে বাস চালক মো. নূরুল আফসার (৪৫) ও আলী আজমের কন্যা ফারিহা আক্তার (৭) এবং আজিজুল হকের ছেলে ফরহাত হোসেন (২৩) গুরুতর আহত হয়। এসময় কাপ্তাই ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, পুলিশ ও স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে অবস্থা আশঙ্খাজনক হওয়ায় দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে উক্ত সময়ে স্কুল শিক্ষিকা জান্নাতুল ফেরদাউ নিসাত (২০), ৫ম শ্রেণীর ছাত্র ওহিদুল আলম (১২), ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী ফারিহা মজুমদার (১২), শিরিন আক্তার (২২), তাসলিমা আক্তার (১৮) কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়েছে।
কাপ্তাই থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নূরুল আলম জানান, আহতদের উদ্ধারে কাপ্তাই থানা পুলিশ সহযোগিতা করেছে। দূর্ঘটনায় কবলিত গাড়িটি পুলিশি নজরে রয়েছে বলেও জানান কাপ্তাই থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নূরুল আলম। তিনি বলেন, প্রত্যেককে নিরাপদে বাড়ি ফিরিয়ে দিতে পুলিশ নিরলস পরিশ্রম করেছেন।
এদিকে দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. দিলদার হোসেন সাংবাদিকদের কাছে এই বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আহতদের যথার্থভাবে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে। আমি নিজে তাদের হাসপাতালে গিয়ে খোঁজখবর নিয়েছি। তারা যেহেতু কাপ্তাইয়ে এসেছে তাই আমরা বিষয়টি আন্তরিকতার সাথে দেখছি। তাদের নিরাপদে বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়া পর্যন্ত আমরা সব খবরাখবর রাখছি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।