কাপ্তাই হ্রদ খননের উদ্যোগ সরকারের

রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদ
মৎস্য উৎপাদন ও সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাপ্তাই হ্রদ খননের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। খননের মাধ্যমে রাঙ্গামাটি থেকে থেগামুখ পর্যন্ত লেকটির নাব্যতা বাড়ানো হবে। গতকাল জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি দবিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, মূলত বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যেই কাপ্তাইয়ে কর্ণফুলী নদীর ওপর বাঁধ দেয়া হয়েছিল। এ বাঁধের মাধ্যমে সৃষ্টি করা হয় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সর্ববৃহৎ কৃত্রিম হ্রদ। শুরু থেকে দেশে মৎস্য উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে এ হ্রদ। বর্তমানে চট্টগ্রাম ও রাঙ্গামাটি জেলার অনেক মানুষের জীবিকা কাপ্তাই হ্রদের ওপর নির্ভরশীল। তবে অবৈধ দখল, দূষণ, পলি ভরাটসহ নানা কারণে বর্তমানে স্বকীয়তা হারাতে বসেছে কাপ্তাই হ্রদ। এজন্য এটি খননের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

সংসদীয় কমিটির বৈঠকে কাপ্তাই হ্রদে আরো মৎস্য উৎপাদনের লক্ষ্যে বেশিসংখ্যক পোনা অবমুক্তকরণের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। সরকার এ বিষয়ে যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও জানানো হয় এ সময়।

বৈঠকে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে তিন পার্বত্য জেলায় বর্তমান সরকার কর্তৃক গৃহীত উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। পার্বত্য তিন জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসকের শূন্য পদ পূরণে দ্রুত নিয়োগ প্রদানের সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি মো. দবিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উ শৈ সিং, দীপংকর তালুকদার, এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী ও বাসন্তী চাকমা অংশ নেন।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব, পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, আনসার ও ভিডিপির মহাপরিচালক, তিন পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।