কারা আসছে থানচি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ?

অবশেষে বহু প্রত্যাশিত কাউন্সিল এর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বান্দরবানে থানচি উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা। কাউন্সিলে কে হচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, এই নিয়ে নেতা কর্মীদের মধ্যে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষন।
সংগঠনটির সূত্রে জানা গেছে, জেলা আওয়ামীলীগের নির্দেশনার পর কাউন্সিল করতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি স্বপন কুমার বিশ্বাসকে আহবায়ক করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠিত হয়েছে। আগামি ৮ই জুন ২০১৯ শনিবার যথা সময়ে কউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করছেন দলটির নেতাকর্মীরা ।
উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীদের সূত্রে জানা যায়, ৯০ এর দশকের দিকে সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী ও শৃংঙ্খলা ছিল উপজেলা আওয়ামীলীগে। তৎকালীণ সময়ের আওয়ামীলীগের অভিবাবকরা নিষ্ঠার সাথে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে জনগনের সেবা মূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের নিয়ে কাজ করেন। সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে জয় ছিনিয়ে আনেন। কিন্তু ২০১১ সালে কাউন্সিলের পর দায়িত্বপালন করা নেতারা উপজেলাটিতে দলকে আরো শক্তিশালী করতে ব্যর্থ হন। যার ফলে বিগত দুইটি নির্বাচনে বিজয় ছিনিয়ে নিতে অনেকাংশ কষ্টকর হয়ে দাড়ায় নেতাকর্মীদের জন্য । আরো জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে থাকা নেতারা জেলা শহরে দিনের পর দিন অবস্থান করে উপজেলায় দলীয় কার্যক্রম চালানোর কারনে ঝিমিয়ে পরে সংগঠনটি। ফলে এবার উপজেলার কর্মীরা এবার এমন অভিবাবক চাচ্ছেন যারা উপজেলায় অবস্থান করে দলীয় রাজনীতিকে সক্রিয় করে নেতাকর্মীদের পাশে থাকবেন।
যুব লীগের সভাপতি সচিন ত্রিপুরা, ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক উঅংছেন মারমা,কৃষক লীগের সম্পাদক হ্লাশৈমং মারমা জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক এমন ব্যক্তিকে চায়, যিনি থানচি উপজেলা সদরের সর্বাক্ষনিক অবস্থান করবেন। রাজনৈতিক কাজ ছাড়া তিনি কোন প্রকার অন্যত্র যাবে না।
তারা আরো বরেন, কর্মীবান্ধব,জনকল্যাণ মূলক কর্মসূচী কর্মীদের স্বতষ্ফুর্ত অংশগ্রহনের মধ্য দিয়ে চুড়ান্ত সিন্ধান্তসহ জাতির পিতার নীতি আদর্শ প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশ মেনে চলে, তাকে আমরা অভিবাবক হিসেবে চাচ্ছি ।
আরো জানা যায়, বর্তমান সভাপতি মংথোয়াইম্যা মারমা (রনি) ও উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্বে রয়েছেন। তাদের একজন পার্বত্য মন্ত্রীর প্রতিনিধিত্ব করছেন, অন্যদিকে একজন উপজেলা চেয়ারম্যানঅ। তারা সরকারি কাজে ব্যস্থ সময় পার করছেন, ফলে সংগঠনকে তেমন সময় দিতে পারেন না। জনপ্রতিনিধি ছাড়াও সংগঠনে অনেকে রয়েছেন সময় দিতে পারে তাদেরকে নেতৃত্বে আনা হলে চাঙ্গা হবে দল।
নেতাকর্মীরা জানান, সাবেক সভাপতি বাশৈচিং হেডম্যান ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মংবোওয়াংচিং মারমা দুইজনের মধ্যে যে কেউ একজনকে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়ে আসলে সংগঠনে শৃংঙ্খলা ফিরে আসবে। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগ,স্বেচ্ছা সেবক লীগ, কৃষক লীগের অনেক উদীয়মান ও শিক্ষিত তরুণ রয়েছে তাদের থেকে কেউ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে আসলে জেলার এই উপজেলাটিতে আগের যেকোন সময়ের চেয়ে শক্তিশালী হতে পারে আওয়ামীলীগ।
আওয়ালীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান অলসেন ত্রিপুরা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মালিরাং ত্রিপুরা,উবামং মারমা, বলিপাড়া ইউনিয়ন সভাপতি সাথুইখয় মারমা ,সম্পাদক নিহার বিন্দু চাকমাসহ অনেকের সাথে কথা বলে জানা যায়, একজন নেতাকে সরকারি পদ হোক বা রাজনৈতিক পদ হোক একটাই পদে দায়িত্বে দিলে তিনি অবশ্যই সংগঠনের কাজ করবে। তারা আরো বলেন, একজনকে একাধিক পদে দিলে পদ না পাওয়ার বেদনায় অনেকে দলের থেকে দূর সরে যান, ফলে দলের শৃংঙ্খলা থাকেনা । নির্বাচনের সময় পদ বঞ্চিতরা কাজ করতে নারাজ ।
দলের সিনিয়র নেতারা মনে করেন,বিগত কমিটিতে সভাপতি মংথোয়াইম্যা মারমা (রনি) পার্বত্য মন্ত্রীর প্রতিনিধিত্বের পাশাপাশি, ব্যবসা-বাণিজ্যে ব্যস্ত হয়ে পড়ার কারনে সংগঠন নিস্ক্রিয় হয়ে পরে। অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক থোয়াইহ্লামং মারমা জেলা পরিষদের সদস্য, বর্তমানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তিনি ও একই রকমে পরিস্থিতির কারনে বেকায়দায় পড়ে সংগঠন।
কাউন্সিল ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি আহবায়ক স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন,কাউন্সিলে নির্বাচন হবে। যে নির্বাচন করুক এবং বিজয়ী হোক তার পক্ষে কাজ করবেন। তিনি আরো বলেন, থানচি উপজেলায় স্থায়ীভাবে অবস্থান করে এবং নেতা কর্মীরা সুখে দুঃখে বিপদে আপদে যাকে সার্বক্ষনিক কাছে পাবো তাকে অভিবাবক হিসেবে করলে আমাদের কোন দুঃখ থাকবে না।
উপজেলার কাউন্সিলে সভাপতি পদে মংথোয়াইম্যা মারমা (রনি), বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা, সাবেক সভাপতি বাশৈচিং মারমা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মংবোওয়াংচিং মারমা, সাবেক জেলা পরিষদের সদস্য অং প্রু ম্রো সভাপতি পদে এবং সাধারণ সম্পাদক পদে সহসভাপতি উবামং মারমা, সাংগঠনিক সম্পাদক অলসেন ত্রিপুরা, থানচি সদর ইউনিয়নের সভাপতি মালিরাং ত্রিপুরা, রেমাক্রী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুইশৈথুই মারমা (রনি) প্রার্থী হতে পারেন বলেন ধারনা করছেন দলটির নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।