‘কার মান ভাঙাতে যাবো?’

কারও মান ভাঙাতে যাবেন না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘এখানে কে মান অভিমান করলো, কার মান ভাঙাতে যাবো, সেটা জানি না। সহানুভূতি দেখাতে গিয়ে যদি অপমানিত হয়ে ফিরে আসতে হয়, সেখানে আর যাওয়ার কোনও ইচ্ছা আমরা নেই।’ বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তরে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমামের এ সংক্রান্ত এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে ফখরুল ইমাম তার প্রশ্নে বলেন, ‘দেশে পলিটিক্যাল অভিমান চলছে। এটা কোনোক্রমেই রোহিঙ্গা সমস্যার থেকে কম নয়। এটা কীভাবে সমাধান করবেন, তা জানতে চাই।’ জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মান-অভিমান কোথায়, তা আমি জানি না। এটা নীতির প্রশ্ন, রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের প্রশ্ন আর হচ্ছে আইনের প্রশ্ন। কেউ যদি অন্যায় করে, অর্থ আত্মসাৎ করে, চুরি করে, খুন করে, খুনের প্রচেষ্টা চালায়, গ্রেনেড ও বোমা মারে। তার বিচার হবে এটাই স্বাভাবিক।’

যার যার আদর্শ নিয়ে সবাই রাজনীতি করে মন্তব্য করে সরকারপ্রধান বলেন, ‘দেশটা সবার। বিষয়টি এমন নয় যে, দেশটা আমাদের একার। যারা রাজনীতি করবেন, দেশের প্রতি তাদের দায়িত্ববোধ থাকতে হবে। সেই দায়িত্ববোধ থেকেই নিজেদের কর্মপন্থা ঠিক করবেন। সেই অনুযায়ী কাজ করবেন।’

নিজের নীতি আদর্শের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি নিজের স্বার্থে রাজনীতি করি না। নিজেদের লাভ-লোকসানের জন্য রাজনীতি করি না। লাভ-লোকসানের বিচার করি না। সেই হিসাবও করি না। হিসাব করি জনগণের জন্য কী করলাম। তাদের কতটুকু করতে পারলাম জনগণের জন্য রাজনীতি করি। সেভাবে পদক্ষেপ নেই এবং বাস্তবায়ন করি। আন্তরিক ও নিঃস্বার্থভাবে দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করি বলেই অল্প সময়ে এত উন্নয়ন করতে সক্ষম হয়েছি। আমার কাছে ব্যক্তির থেকে দেশ ও দেশের মানুষের স্বার্থটাই বড়। ব্যক্তিগত হিসাব-নিকাশ করি না। কতটুকু দিতে পারলাম, সেই হিসাবটা করি। কী পেলাম, কী পেলাম না, সেই হিসাব করি না। অতীতে তো অনেক সরকার ছিল। সেখানে দেশের থেকে ব্যক্তি-গোষ্ঠী বড় ছিল বলেই তারা উন্নতি করতে পারেনি। আমাদের কাছে সেটা কখনোই ছিল না।’

আরও পড়ুন
Loading...