কৃষিতে এগিয়ে যাচ্ছে পার্বত্যঞ্চল : বীর বাহাদুর

NewsDetails_01

কৃষিতে এগিয়ে যাচ্ছে পার্বত্যঞ্চল। একসময় পার্বত্য এলাকা কৃষিক্ষেত্রে অনেক পিছনে থাকলেও এখন নানা ধরণের ফল ফলাদিতে ভরপূর এই পাবর্ত্য জেলা আর এর ফলে চাষীদের জীবনমানের উন্নয়ন ঘটছে।

আজ শনিবার (৮ জুন) সকালে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের অডিটরিয়ামে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে বিভিন্ন সমবায় সমিতি ও কৃষকদের মাঝে কৃষি যন্ত্রপাতি, ফলদ ও বনজ গাছের চারা এবং গবাদি পশু বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে ৩০০নং আসনের সংসদ সদস্য ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর বাহাদুর উশৈসিং এমন মন্তব্য করেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার কারণে পার্বত্য এলাকার কৃষি ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে আর আর্থ সামাজিক উন্নয়ন ঘটেছে কৃষকদের। একসময়ে থানচি, রোয়াংছড়ি, রুমা উপজেলা সহ দুর্গম এলাকায় যে ফলফলাদি উৎপাদিত হতো তা পরিবহনে চাষীদের প্রচুর কষ্ট ভোগ করতে হতো বলে মন্তব্য করে বীর বাহাদুর বলেন, বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার পাহাড়ের আনাছে কানাছে অসংখ্য ব্রীজ,কালব্রাট আর সড়ক নির্মাণ করেছে আর তার কারণে দুর্গম এলাকার চাষীরা আজ তাদের ফসলের ন্যায্যমুল্য পাচ্ছে।

NewsDetails_03

সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডে সকলকে পাশে থাকার আহবান জানিয়ে সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর আরো বলেন, পার্বত্য এলাকায় উৎপাদিত ফল যাতে দ্রুত নষ্ট না হয় সেজন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে ৩ পার্বত্য জেলা কোল্ড ষ্টোরেজ নির্মাণ হবে আর এতে চাষীরা অনেক ভোগান্তী থেকে রেহাই পাবে।

৩০০ নং আসনের সংসদ সদস্য ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর বাহাদুর উশৈসিং আরো বলেন, প্রতিবছরই বর্ষা মৌসুমে পার্বত্য জেলা পরিষদের মাধ্যমে সরকার পার্বত্য এলাকায় প্রচুর কৃষি যন্ত্রপাতি, পাওয়ার টিলার, সেচ পাম্প মেশিন, ধান মাড়াই মেশিন, স্প্রে মেশিন, পাওয়ার স্প্রে মেশিন, ফলদ ও বনজ গাছের চারা বাশের চারা এবং গবাদি পশু বিতরণ করে আর তার সুফল পাচ্ছে সাধারণ জনগণ।

বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা এর সভাপতিত্বে এসময় অনুষ্ঠানে পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহ আলম, পৌরসভার মেয়র মো. সামসুল ইসলাম, পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্যসাপ্রু সহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন এলাকার কৃষকরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে শেষ পর্যায়ে ১কোটি ৫০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে বান্দরবানের ৭টি উপজেলার বিভিন্ন নিবন্ধনকৃত সমবায় সমিতি ও কৃষকদের মাঝে কৃষি যন্ত্রপাতি, পাওয়ার টিলার, সেচ পাম্প মেশিন, ধান মাড়াই মেশিন, স্প্রে মেশিন, পাওয়ার স্প্রে মেশিন, ফলদ ও বনজ গাছের চারা বাশের চারা এবং গবাদি পশু (বকনা গরু) বিতরণ করা হয়।

আরও পড়ুন