কেএনএফএর ৩০ আসামীকে চট্টগ্রাম কারাগারে হস্তান্তর

NewsDetails_01

বান্দরবানের রুমা ও থানচি উপজেলায় ব্যাংক ডাকাতি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১৪টি অস্ত্র লুটের মামলায় বিভিন্ন সময় গ্রেফতারকৃত কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) এর ৩০ আসামীকে বান্দরবান জেলা কারাগার থেকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কারাগারে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) সকালে র ্যাব, পুলিশের কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে তাদেরকে চট্টগ্রাম কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

জেলা কারাগার সূত্র জানায়, রুমা ও থানচিতে ব্যাংক ডাকাতি, অস্ত্র লুট ও ব্যাংক ম্যানেজারকে অপহরনের ঘটনায় বান্দরবান কারাগারে থাকা কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট কেএনএফ এর ৩০ সদস্যকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কারাগারে হস্তান্তর করা হয়েছে। বান্দরবানের জেলখানায় স্থান সংকুলান না হওয়ায় তাদেরকে চট্টগ্রাম কারাগারে হস্তান্তর করা হয়। এদের মধ্যে কেএনএফ এর ১৫ জন নারী ও ১৫ জন পুরুষ সদস্য রয়েছে।

NewsDetails_03

এ বিষয়ে বান্দরবান জেল সুপার জান্নাতুল ফরহাদ বলেন, কারাগারে স্থান সংকুলান না হওয়ায় কেএনএফ এর ৩০ আসামীকে চট্টগ্রাম কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আদালতে হাজিরা থাকলে তাদের ফের নিয়ে আসা হবে, অথবা ভার্চুয়ালী হাজিরা নেয়া হবে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, যৌথ বাহিনীর অভিযানে বান্দরবান সদরে গত ২৩ মে ২ জন, ১৯ মে রুমা-রোয়াংছড়ি সীমান্তবর্তী ডেবাছড়া এলাকায় ৩ জন, ৭ মে রুমার দুর্গম দার্জিলিংপাড়ায় ১জন, ২৮ এপ্রিল রুমার রেমাক্রী প্রাংসা ইউনিয়নে ২ জন, ২২ এপ্রিল রুমা উপজেলার দুর্গম মুনলাই পাড়ায় ১জন কেএনএফ সশস্ত্র সদস্য মারা যায়। নিহতরা সবাই বম সম্প্রদায়ের পুরুষ সদস্য। এসময় কেএনএফ সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত বিপুল পরিমাণে অস্ত্র-গোলাবারুদ ও বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ২ ও ৩ এপ্রিল রুমা ও থানচিতে ব্যাংক ডাকাতি, অস্ত্র লুট ও ব্যাংক ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনকে অপহরন করে কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট কেএনএফ। এরপর থেকে কেএনএফ সদস্যদের ধরতে যৌথ অভিযান চলছে। এপর্যন্ত যৌথ অভিযানে কেএনএফ এর ৯৪ জনকে গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরন করে আইন শৃঙ্খলাবাহিনী।

আরও পড়ুন