কোন শর্তেই খাগড়াছড়িতে আর কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না : ডিসি

খাগড়াছড়িতে জেলাকে করোনা ভাইরাসের সংক্রামণের হাত থেকে রক্ষায় গঠিত জেলা কমিটির গৃহীত কোন সিদ্ধান্ত মাঠপর্যায়ে বাস্তবায়নের চিত্র দেখা যাচ্ছে না। গত ১২ এপ্রিল জেলা কমিটির জরুরী সভা শেষে খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট স্বাক্ষরিত এক পত্রে জেলায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলেও এখনও পর্যন্ত মাঠ পর্যায়ে তার বাস্তবায়ন দেখা যাচ্ছে না।

১৫ এপ্রিল বুধবারও খাগড়াছড়ি জেলার প্রবেশমুখ মানিকছড়ি ও রামগড় উপজেলা দিয়ে হাজার হাজার মানুষ খাগড়াছড়ি জেলায় ঢুকছে। এতে করে উদ্বেগ ও আতঙ্ক বাড়ছে স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে। খাগড়াছড়ি জেলায় এখনও পর্যন্ত কোন করোনা পজেটিভ রোগী সনাক্ত না হলেও প্রশাসনের এমন সমন্বয়হীনতার কারণে ঝুঁকি বাড়ছে বলে মনে করছেন অনেকে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা।

জানা গেছে, ১৫ এপ্রিল ভোর রাত থেকে খাগড়াছড়ি শহরের প্রবেশ পথ মানিকছড়ি উপজেলার নয়াবাজার এলাকায় জড়ো হতে থাকে চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় অবস্থানরত লোকজন। সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে পাশাপাশি দাড়িয়ে নাম নিবন্ধন করতে দেখা গেছে। বিশ্বব্যাপী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ যেন কোন গুরুত্ব পাচ্ছে না এদের কাছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন ছবি ছড়িয়ে পড়ার পর আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় বইছে। এমন প্রেক্ষিতে নতুন করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন।

মানিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামান্না মাহমুদ জানান, এতোদিন জেলা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জিম্মায় প্রবেশকারীদের দেয়া হলেও আজ থেকে এ কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আজকের পর থেকে কাউকে মানিকছড়ি সীমান্ত অতিক্রম করতে দেয়া হবে। ফটিকছড়ি উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতা চাওয়া হয়েছে তারাও যেন কাউকে তাদের সীমানা অতিক্রম করতে না দেয়।

খাগড়াছড়ি শহরের প্রবেশ মুখ জিরো মাইলে স্বেচ্ছা উদ্যোগে জীবাণু নাশক কার্যক্রমে কাজ করছে একঝাঁক তরুণ। তাদের কয়েকজন ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, প্রিয় খাগড়াছড়ি জেলাকে করোনা ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা করতে দিন রাত কাজ করে যাচ্ছি। যারা বাহির থেকে আসছেন তাদেরও পরিবহনগুলো জীবাণু নাশক স্প্রে করা হচ্ছে। তবে যে হারে প্রতিনিয়ত লোকজন আসছে তাদের যদি রুখতে প্রশাসন ব্যর্থ হয় তাহলে খাগড়াছড়ির অবস্থা কিছুদিনের মধ্যে ভয়ানক হতে পারে।

খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, আজকের পর থেকে (১৫ এপ্রিল) খাগড়াছড়ি জেলায় কোন শর্তে কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। এতোদিন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জিম্মায় প্রবেশকারীদের দেয়া হলেও তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে রাখার কার্যক্রম যথাযথভাবে বাস্তবায়ন সম্ভব হচ্ছেনা । তাই জেলা কমিটির জরুরী সিদ্ধান্তে সকল প্রবেশ মুখ কাউকে ঢুকতে না দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দেশের যে প্রান্ত থেকে আসুক না কেন তাকে সেখানে ফিরে যেতে হবে। এ জন্য সেনাবাহিনী ও পুলিশের সহযোগীতা চাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।