খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ কর্মী গুলিতে নিহত

১৬ সালের ২৩ নভেম্বর যৌথ বাহিনীর এক অভিযানে অস্ত্রসহ আটক হয়েছিল (গোল চিহ্নিত )পিপলু বৈষ্ণব ত্রিপুরা ওরফে রনি
খাগড়াছড়ি সদরের গাছবান এলাকায় আজ (শনিবার) রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টায় পিপলু বৈষ্ণব ত্রিপুরা (৪২) নামের ইউপিডিএফ-এর এক কর্মী দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত। সে খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার বল্টুরাম এলাকার মৃত নিগমানন্দ বৈষ্ণব ত্রিপুরার ছেলে।
পুলিশ জানায়, রনি পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপের সামরিক শাখার সাথে সম্পৃক্ত ছিল। ২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর যৌথ বাহিনীর এক অভিযানে অস্ত্রসহ আটক হয়েছিল। কারাগার থেকে বের হয়ে আবারও সে ইউপিডিএফ’র সাথে সম্পৃক্ত হয়ে পড়ে।
তবে নিহত রনিকে নিজেদের সাবেক কর্মী দাবি করে ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নিরন চাকমা বলেন, একটি দূর্ঘটনায় পায়ে আঘাত পেয়ে শারীরিক ভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে পড়ে। ইউপিডিএফ’র সাথে সম্পৃক্ত থাকায় জনসংহতি সমিতির সংস্কারবাদীরা তাকে হত্যা করেছে। ইউপিডিএফর অভিযোগ অস্বীকার করেছে জনসংহতি সমিতির এমএন লারমা গ্রুপের কেন্দ্রীয় ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক সুদর্শন চাকমা।
খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সাহাদাত হোসেন টিটো ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।