খাগড়াছড়িতে পাহাড়ি নারীর উপর এ কেমন বর্বর নির্যাতন !

খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার বাবুছড়া ইউনিয়নের দুর্গম লম্বাছড়া গ্রামে প্রতিপক্ষ সংগঠনকে সহযোগিতা করার সন্দেহে স্বপ্না চাকমা (২৩) নামের এক পাহাড়ি নারীকে ধরে রাতভর বর্বর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ইউপিডিএফ (প্রসীত) সমর্থিত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে।

নির্যাতনের শিকার এই পাহাড়ী নারী স্বপ্না চাকমা জানান, গত রোববার (৭ জুন) মধ্য রাতে ইউপিডিএফ (প্রসিত) গ্রুপের সন্ত্রাসী আদে চাকমাসহ ৩/৪জনের একটি সন্ত্রাসী দল অস্ত্রের মুখে উপজেলার লম্বাছড়া গ্রামে তাদের বাড়ীতে হানা দিয়ে তার চোখমুখ বেধে পাশ্ববর্তী সোনামিয়া টিলা এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে রাতভর নির্যাতন চালায়। পরদিন ৮ জুন সকাল ৯টার দিকে সাধনা টিলা এলাকায় ছেড়ে দেয়। তাকে তুলে নেওয়ার সময় তার বৃদ্ধ বাবা তরু চাকমাসহ পরিবারের লোকজন বাধা দিলে তাদের হত্যার হুমকি দেয়।

স্বপ্না চাকমা আরো জানান, প্রতিপক্ষ ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিককে সহযোগিতার অভিযোগ এনে ইউপিডিএফ (প্রসীত) সমর্থিত সন্ত্রাসীরা তাকে রাতভর নির্যাতনের সময় সে কয়েকবার জ্ঞান হরিয়ে ফেলে। এক পর্যায়ে মৃত ভেবে তাকে ফেলে যায়।

এদিকে ঘটনার তিন দিন পর দীঘিনালা থানায় পাঁচ ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্রুপের সন্ত্রাসীর নাম উল্লেখসহ আরো ১০/১২ অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে হয়েছে। নির্যাতনের শিকার স্বপ্না চাকমাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উত্তম চন্দ্র দেব বলেন, মঙ্গলবার গভীর রাতে নির্যাতিতার ফুফাত ভাই বিজয় চাকমা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। নির্যাতনের শিকার স্বপ্না চাকমাকে দিঘীনালা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।