খাগড়াছড়িতে মং রাজবাড়ীতে রহস্যজনক মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য

খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলার সদরের শতাব্দী প্রাচীন মং রাজবাড়িতে মংবাড়ীতে এক ব্যক্তির রহস্যজনক মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মৃত্যুর জন্য নির্যাতনের অভিযোগ উঠায় পুলিশ ৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে,একটি প্রভাবশালী মহল মং রাজ পরিবারের পক্ষে অবস্থান নিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের উপরও চাপ প্রয়োগের চেষ্টা করছে। তবে স্থানীয় প্রশাসনের উর্ধ্বতন ব্যক্তিরা দাবি করেছেন,ঘটনার প্রকৃত রহস্য উন্মোচন করে অপরাধীদের সনাক্ত করা হবে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মানিকছড়িস্থ মংরাজবাড়ীতে গত শনিবার (২৯ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যার পর অংগ্য মারমা (৫০), পিতা মৃত্যু রবি মারমা সাং মানিকছড়ি রাজপাড়া চোলাই মদ খেয়ে মাতলামি করতে করতে রাজবাড়ীতে ঢুকে পড়েন। এসময় প্রয়াত রাজকুমার চিংপ্রুসাইন বড় ছেলে পার্সিভ্যাল সাইন রয় ওরফে লংকেশসহ ম্যানেজার আপ্রুমং মারমা,ডিকে লাব্রেসাইন, গংজ্যো,ক্যাজাই এবং রামপ্রু গংরা ওই ব্যক্তির হাত-পাঁ রশি দিয়ে বেঁধে নির্যাতন করে। এক পর্যায়ে মদপায়ী অংগ্য মারমা ঘটনাস্থলে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

খবর পেয়ে মানিকছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রাজবাড়ীতে যান এবং সংশ্লিষ্টদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। শনিবার রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন,সার্কেল মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন।

অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন মদপায়ীর লাশ উদ্ধারের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ঘটনার আসল রহস্য জানতে ৬জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। লাশের ময়নাতদন্ত সাপেক্ষে বোঝা যাবে এটি নির্যাতনের কারণে মৃত্যু নাকি অতিরিক্ত মদপান জনিত মৃত্যু। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা গেছে,মৃত ব্যক্তির মরদেহ রোববার সকালে ময়না তদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি জেলাসদর হাসপাতালের মর্গে পৌঁছেছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।