খাগড়াছড়িতে সড়ক অবরোধ কর্মসূচীতে গুলিবর্ষণ, অগ্নিসংযোগ : আহত ৪

খাগড়াছড়িতে সড়ক অবরোধ কর্মসূচীতে গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে পিকেটাররা
পরিবহনে অগ্নিসংযোগ, গুলি বর্ষণ, ভাংচুর, সড়কে আগুনসহ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে খাগড়াছড়িতে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ) এর ডাকা সকাল সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ পালিত হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে খাগড়াছড়ি জেলা সদর, মানিকছড়ি, রামগড়, লক্ষীছড়ি ও মাটিরাঙাসহ বিভিন্ন উপজেলায় রাস্তার উপর সহিংস ভাবে পিকেটিং করে অবরোধ সমর্থকরা।
দুপুরে রামগড় উপজেলার কলাবাড়ি এলাকায় চলন্ত সিএনজি অটোরিক্সায় গুলিবর্ষণ করে পিকেটাররা। এতে মধুপুর দাতারাম কার্বারী পাড়ার বাসিন্দা চালক মো: শরীফুল ইসলাম(২১) আহত হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চট্টগ্রামে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যদিকে, খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়কের গাছবান এলাকায় চট্টগ্রামের মেরিন একাডেমীর এক কর্মকর্তার কার গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে পিকেটাররা। এসময় মেরিন একাডেমীর সেকেন্ড ইঞ্জিনিয়ার আবুল হাসনাত মো: মাসুদ ও চালককে মারধর করে পিকেটাররা। এছাড়া চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের মানিকছড়ি অংশে সরকারি খাদ্য গুদামের খাদ্যশস্য বহনকারী বিআরটিসি ট্রাক ভাংচুর ও চালককে মারধর, লক্ষীছড়িতে চাঁদের গাড়ির কাঁচ ভাংচুর, মাটিরাঙার সাপমারা এলাকায় মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে পিকেটাররা।
অবরোধে খাগড়াছড়ি শহরের সাথে দূরপাল্লা ও উপজেলার অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। খাগড়াছড়ি সদরের চেঙ্গী ব্রীজ এলাকায় সড়কের উপর অগ্নিসংযোগ করার চেষ্টা করে পিকেটাররা। এসময় পিকেটারদের সাথে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পানছড়ি উপজেলার কলেজ গেইট এলাকায় সড়কের উপর পিকেটিংয়ের চেষ্টাকালে পুলিশের সাথে পিকেটারদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশ ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে।
অবরোধ চলকালে খাগড়াছড়ি শহরতলীর অধিকাংশ সড়ক ফাঁকা ছিল। জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় জনসাধারণের চলাচল সীমিত ছিল।
খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাহউদ্দীন জানান, রাষ্ট্রীয় কাজে বাধা ও জননিরাপত্তা বিঘিœত করায় পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নিবে।
ইউপিডিএফ সংগঠক মাইকেল চাকমা জানান, অবরোধে অগ্নিসংযোগ ও গুলি বর্ষণের সাথে ইউপিডিএফ এর কোন সম্পৃক্ততা নাই। ইউপিডিএফ’র রাজনৈতিক মান মর্যাদা ক্ষুন্ন করতে মুখোশ বাহিনীরা তান্ডব চালাচ্ছে। ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর আহবান তপন জ্যোতি চাকমার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও সাড়া পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ, গত ১৮ মার্চ রাঙামাটি সদরের কুতুকছড়ি এলাকা থেকে সন্ত্রাসীরা ইউপিডিএফ সমর্থিত হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও সদস্য দয়াসোনা চাকমাকে অপহরণ করে। এসময় গণতান্ত্রিক যুবফোরামের নেতা ধর্মসিং চাকমাকে গুলি করে আহত করে সন্ত্রাসীরা। এই ঘটনার জন্য ইউপিডিএফ (প্রসিত) সমর্থিতরা নবগঠিত ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সমর্থিতদের দায়ী করে। অপহৃত নেত্রীদের উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবিতে বুধবার খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি জেলায় সকাল সন্ধ্যা সড়ক ও নৌপথ অবরোধ কর্মসূচি আহবান করে ইউপিডিএফ সমর্থিত পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।