খাগড়াছড়ি শহরে বৈসাবি উৎসব শুরু

খাগড়াছড়ি মহাজন পাড়াস্থ ঐতিহ্যবাহী ‘সূর্যশিখা ক্লাব’ মাঠে সপ্তাহব্যাপি ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থা’র সা: সম্পাদক জুয়েল চাকমা
বর্ণাঢ্য আনুষ্ঠানিকতায় খাগড়াছড়ি শহরে পাহাড়ের প্রাণের উৎসব ‘বিজু-সাংগ্রাই-বৈসু (বৈসাবি) শুরু হয়েছে। আজ সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় আলোকউজ্জল পরিবেশে জেলা শহরের মহাজনপাড়াস্থ ঐতিহ্যবাহী ‘সূর্যশিখা ক্লাব’ মাঠে সপ্তাহব্যাপি ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থা’র সা: সম্পাদক জুয়েল চাকমা।
খাগড়াছড়ি শহরের প্রবীন ব্যক্তিত্ব রবি শংকর তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উৎসব উদ্বোধনী সভায় উপস্থিত ছিলেন অমল কান্তি চাকমা, চন্দ্রোদয় চাকমা,স্মৃতি রতন চাকমা, তরুণ সমাজকর্মী বাবুরাম চাকমা,ক্রীড়া সংগঠক প্রদীপ কুমার ত্রিপুরা, স্মৃতি রতন চাকমা, ক্যহ্লাচাই চৌধুরী, সুদীপ্ত চাকমা ও শান্তিব্রত চাকমা।
সূর্যশিখা ক্লাবের সা: সম্পাদক ও পানছড়ি সরকারি কলেজের প্রভাষক নোভেল চাকমা’র সঞ্চালনায় সম্পন্ন সভায় উদ্বোধক জেলা পরিষদ সদস্য জুয়েল চাকমা পাহাড়ের ঐতিহ্যবাহী ক্রীড়াচর্চা বিকাশে ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে নগদ ২০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন।
এসময় তিনি বলেন, খাগড়াছড়ি জেলার যেকটি ঐতিহ্যবাহী ক্রীড়া ও সামাজিক সংগঠন ‘সূর্যশিখা’র ধারাবাহিক ইতিবাচক কার্যক্রমের প্রশংসা করেন।
উল্লেখ্য, প্রতি বছরের মধ্য এপ্রিলে ‘বৈসাবি’-কে কেন্দ্র করে খাগড়াছড়িসহ তিন পার্বত্য জেলায় চাকমা-মারমা-ত্রিপুরাসহ অন্যসব ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠি নানামুখী ক্রীড়া-সাংস্কৃতিক কার্যক্রম গ্রহণ করে থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় মহাজনপাড়া সূর্যশিখা ক্লাব আগামী ১২ এপ্রিল পর্যন্ত সুন্দর হাস্তাক্ষর, তবা ভাঙ্গা (হাঁড়ি ভাঙ্গা), কান্টা মারা (তীর ধনুক), ফোর খেলা (হাডুডু), বালিশ খেলাসহ ১৪ প্রকারের প্রতিযোগিতার আয়োজন শুরু করেছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।