খাগড়াছড়ি হাসপাতালে স্ত্রীর লাশ রেখে পালিয়েছে স্বামী

%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%b6-%e0%a6%89%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%b0খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে স্ত্রীর লাশ রেখে পালিয়েছে ঘাতক স্বামীসহ দুই যুবক। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সাড়ে ৮টার দিকে এক নিস্তেজ মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে তিন যুবক। কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানান মহিলাটি মারা গেছে। মহিলাটির মৃত্যুর কথা জানতে পেরে হাসপাতালে লাশ রেখে কৌশলে পালিয়ে যায় তিন যুবক।

রাত সাড়ে ৯ টার দিকে মো. রবিউল হক নামে এক যুবক হাসপাতালে এসে লাশটি শনাক্ত করে জানায় এটি তার বড় বোনের লাশ।

মো. রবিউল হক জানায়, ২০০৭ সালে রামগড় পৌরসভার মহামুনী এলাকার সাইদুল হক (বড় মিয়ার) ছেলে আনোয়ার হোসেনের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয় ব্গানটিলার আবু তাহারের মেয়ে রহিমা আক্তারের। আঁখি ও আয়েশা নামে তাদের দুই কন্যা সন্তান রয়েছে। তাঁর ভগ্নিপতি রামগড় পৌর এলাকার একজন টমটম চালক।

মেয়েকে প্রায়ই নির্যাতন করা হতো অভিযোগ করে নিহতের পিতা আবু তাহের বলেন, স্বামী পক্ষের লোকজন তাঁর মেয়েকে হত্যা করে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেছে। । গত কালও তার মেয়েকে নির্যাতন করা হয়েছে বলে মেয়ে জানিয়েছিলো। তিনি জানান, বর্তমানে বাড়ি তালাবদ্ধ করে দুই নাতনীকে নিয়ে সবাই পালিয়ে গেছে।

সহকারী পুলিশ সুপার (রামগড় সার্কেল) কাজী মো. হুমায়ুন রশীদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশটি থানায় নেয়া হয়েছে। তদন্ত ছাড়া কিছু বলা যাচ্ছেনা মন্তব্য করে তিনি বলেন, মামলা পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরও পড়ুন
Loading...