ঘুমধুম সীমান্তে স্থলমাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা নারী আহত

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সীমান্ত
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পুতে রাখা স্থলমাইন বিস্ফোরণে এক রোহিঙ্গা নারী আহত হয়েছে। বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ৩১নং পিলারের রায়বুনিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত নারী সাবেকুন্নাহার (৪৫) রোহিঙ্গা নাগরিক জাফর আলমের স্ত্রী।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ সোমবার ২ টা ৪০ মিনিটের সময় ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকালে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পুতে রাখা স্থলমাইন বিস্ফোরণে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে স্থানীয়রা মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করেন। বর্তমানে উখিয়া কুতুপালং ইউ.এন.এইচ.সি.আর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
উল্লেখ্য, গত ২৪ আগষ্ট থেকে মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে সেনাবাহিনী কর্তৃক চলমান সহিংসতায় অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশ সীমান্তের জিরো পয়েন্টে স্থলমাইন স্থাপন করেছে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী। বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ানমারের ২৭১ কিমি. সীমান্ত রয়েছে। নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্ত এলাকা পর্যন্ত সবচেয়ে বিপজ্জনক। ঐ সব এলকার সীমান্তে যারা থাকেন তাঁদের মধ্যে মাইন আতঙ্ক একটি বড় আতঙ্ক। ২০১৫ সালের ৭ জানুয়ারী নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ৪৯নং পিলারের নো-ম্যান্স ল্যান্ড থেকে ১২টি স্থলমাইন উদ্ধার করেছিল বিজিবি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।