ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’ মোকাবেলায় লামায় নিরাপদে আশ্রয় নিতে মাইকিং

চিত্রে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’
এবার এগিয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’। কক্সবাজারসহ আশপাশ এলাকায় চলছে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত। চলমান ঘূর্ণিঝড়টি কাল মঙ্গলবার ভোরে চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করতে পারে। এসময় এর গতিবেগ ঘন্টায় ৮৮ কিলোমিটারের বেশি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।
এমন সংকেতে দুর্যোগ মোকাবেলায় বান্দরবানের লামা উপজেলা প্রশাসন এক প্রস্তুতি সভা করেছে। সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে এ প্রস্তুতি সভা করা হয়। সভায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী, নির্বাহী কর্মকর্তা খিনওয়ান নু, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ মাহাবুবুর রহমান, বিদ্যুতের আবাসিক প্রকৌশলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় যেসব স্থানে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাধারন লোকদের জান ও মালের ক্ষতিসাধন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সব এলাকা ছেড়ে সরকারী স্কুলগুলোতে আশ্রয় নেওয়ার জন্য স্থানীয়দের অনুরোধ জানানো হয়। পাশাপাশি সোমবার দুপুর থেকেই পৌরসভা এলাকাসহ ইউনিয়নগুলোতে পৃথক মাইকিং করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
লামা উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুুরী পাহাড়বার্তাকে জানান, বিগত সময়ে অসচেতনার কারণে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে এলাকার সাধারন মানুষদের ঘরবাড়ীসহ জান মালের ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তাই পূর্বেই এলাকার জনসাধারণকে সজাগ করতে মাইকিং করা হয়েছে।
এদিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে আশ্রয়স্থল ঠিক করা, ফায়ার বিগ্রেড, বিদ্যুৎসহ আইনশ্খৃংলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খিনওয়ান নু।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. GolDen SaiNg MaRma বলেছেন

    good

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।