চাঁদাবাজির মামলায় কথিত সাংবাদিক রতন ২ দিনের রিমান্ডে

কথিত সাংবাদিক রতন দে শাওন
কথিত সাংবাদিক রতন দে শাওন
বান্দরবানে চাঁদাবাজির মামলায় মাইটিভি’র কথিত সাংবাদিক রতন দে শাওনের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। রোববার দুপুরে রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত।
পুলিশ ও আইনজীবিরা জানায়, মাইটিভি’র প্রতিনিধি পরিচয় দিয়ে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এবং পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা’র নাম ভাঙ্গিয়ে শিক্ষকের চাকরী দেয়ার কথা বলে চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেফতার হওয়া ভূয়া সাংবাদিক রতন দে শাওন’কে (৩৩) পুলিশ বান্দরবান সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আবু হানিফের আদালতে হাজির করে। ঘটনার সত্য উদঘাটনে পুলিশ আদালতের কাছে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে আসামী রতন দে শাওনের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত তদন্ত কর্মকর্তা কৃষ্ণ কুমার দাশ জানান,প্রতিমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে লামা উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নের বাসিন্দার শাহেদুল ইসলামের কাছ থেকে ৩ লক্ষ ২৯ হাজার টাকা চাঁদা নিয়েছে মাইটিভি’র সাংবাদিক পরিচয়দানকারী রতন দে শাওন। কিন্তু মাইটিভি চট্টগ্রাম অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি থেকে পাওয়া লিখিত পত্র মতে বান্দরবান তাদের কোনো প্রতিনিধি নেই। সাংবাদিকের ভূয়া পরিচয়ে ব্যবহার করে রতন চাঁদাবাজিসহ অপরাধ মূলক কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে। চাঁদাবাজির মামলায় আদালতের নির্দেশে তাকে ২ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, তার বিরুদ্ধে সদর থানায় দুটি চাঁদাবাজি মামলা, নারী ও শিশু নির্যাতন, মাদকদ্রব্য এবং আওয়ামীলীগের মিছিলে হামলা’সহ আরো একাধিক মামলা রয়েছে।
মামলার বাদী শাহেদুল ইসলাম বলেন, মাইটিভি’র সাংবাদিক পরিচয়ে বিএনপির নেত্রী গীতা রাণীর ছেলে রতন দে শাওন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী এবং পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের নাম ভাঙ্গিয়ে চাকরী দেয়ার কথা বলে আমার কাছ থেকে ৩ লক্ষ ২৯ হাজার টাকা চাঁদা নিয়েছে। চাকরী না হওয়ায় চাঁদার টাকা ফেরত চাইলে ক্ষীপ্ত হয়ে আমাকে মারধর করার হুমকি দেন, নিরুপায় হয়ে আমি থানায় মামলা করেছি।
প্রসঙ্গত: চাঁদাবাজির মামলায় গত ৫ অক্টোবর জেলা শহরের মেম্বার পাড়াস্থ নিজ বাসা থেকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কথিত সাংবাদিক রতন দে শাওনকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে বান্দরবান সদর থানায় ২টি চাঁদাবাজি মামলা, নারী ও শিশু নির্যাতন, মাদকদ্রব্য এবং আওয়ামীলীগের মিছিলে হামলা’সহ একাধিক মামলা রয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।