চায়ের গুণগান

চীন দেশের পানীয় হলেও চা এখন সারা বিশ্বেরর নিত্যদিনের পানীয়। শহর থেকে গ্রামে, হাট থেকে মাঠে সব জায়গায় রয়েছে চায়ের কদর। রঙ চা, দুধ চা, মশলা চা, সুগন্ধী চা, লেবু চা, পুদিনা চা, কত বাহার রয়েছে চায়ের। এই চা দিনে একবার আপনাকে খেতেই হবে। চাঙ্গা দিন শুরু করতে চায়ের কোনও বিকল্প নেই। চলুন জেনে নেই চায়ের গুণের কথা। চায়ের রয়েছে ফ্ল্যাভোনয়েড। যা এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস। এই ফ্ল্যাভোনয়েড নামের অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস খাবারের সঙ্গে শরীরে গেলে হৃদযন্ত্র অনেক বেশি সক্রিয় থাকে। ফলমূল বা শাক-সবজিতে যে পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস থাকে তার চেয়ে চায়ে বেশি পাওয়া যায়। চায়ে আছে কিছু ভিটামিন, দুটি খনিজ ও ১৫টিরও বেশি অ্যামাইনো অ্যাসিড। আছে থায়ামিন (ভিটামিন বি) কার্বোহাইড্রেট, মেটাবলিজমের জন্য যা দরকার। চায়ে আছে ভিটামিন-সি (অ্যাসকরবিক অ্যাসিড) যা শরীরের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এ ছাড়া চায়ে আছে ভিটামিন-বি, ফলিক অ্যাসিড প্রভৃতি। আমাদের শরীরে দিনে ২ থেকে ৫ মিলিগ্রাম ম্যাঙ্গানিজের দরকার হয়। পাঁচ থেকে ছয় কাপ চা দুধ ছাড়া পান করলে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ম্যাঙ্গানিজের ৪৫ শতাংশ পূরণ হয়। শরীরের স্বাভাবিক কাজকর্মের জন্য প্রয়োজন পটাশিয়ামের। পটাশিয়াম আলস্য কাটায়, ক্লান্তি, অবসাদ প্রভৃতিকে কাটিয়ে শরীরকে চাঙ্গা করে রাখে। প্রতিদিন ৪-৫ কাপ সবুজ চায়ের লিকার শরীরের প্রয়োজনীয় পটাশিয়ামের তিন-চতুর্থাংশ পূরণ করে। চায়ে সামান্য পরিমাণে জিঙ্ক আছে। যা শরীরের জন্য অত্যন্ত কার্যকর। সুতরাং, দিনে চার-পাঁচ কাপ শুধু চা পান করাই যেতে পারে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।