ছাত্রলীগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর আক্ষেপ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক জীবনের শুরু ছাত্রলীগ দিয়েই। ছয় দফা আন্দোলনের সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল তার। বদরুন্নেসা কলেজে পড়ার সময় ছাত্র সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে পাস করেছিলেন তিনি। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রোকেয়া হলের নেতাও ছিলেন তিনি। কিন্তু সংগঠনের কেন্দ্রীয় পদ কখনও পাননি শেখ হাসিনা।

বুধবার গণভবনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মত বিনিময়ে সেই আক্ষেপের কথাই তুলে ধরলেন শেখ হাসিনা। ছাত্রলীগের রাজনীতির স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, ‘আমি ছিলাম ক্ষুদ্র কর্মী। বদরুন্নেসা কলেজে নির্বাচিত ভিপি ছিলাম। সেই সময়টা ছিল কঠিন।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির সদস্য ছিলাম। তবে কেন্দ্রীয় কমিটি কোনোদিন আমাকে সদস্য বানায় নাই। এই দুঃখের কথা সব সময় আমি বলি। আমি তখন ঢাকা শহরের একটি কলেজের নির্বাচিত ভিপি। সেখানে আমাকে কেন্দ্রীয় সদস্য পদ দেয়া হয়নি।’

এখন অবশ্য শেখ হাসিনার আর সেই আক্ষেপ নেই। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ছাত্রলীগ শেখ হাসিনাকে সংগঠনের আজীবন সদস্য বানায়।‘এটা ঠিক, কোনো পদ পেলাম কি না পেলাম সেটা চিন্তা করে রাজনীতি করিনি। আমি রাজনীতি করি জনগণের জন্য, দেশের জন্য’-বলেন প্রধানমন্ত্রী।

ছাত্রজীবনে রাজনীতির স্মৃতিচারণ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এখন মিছিলের জায়গা অনেক কম। কিন্তু আমরা পুরান ঢাকায় লম্বা পথ পাড়ি দিতাম মিছিলে। কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে থেকে মিছিল শুরু করতাম। মৌলভীবাজার হয়ে নওয়াবপুর রোড দিয়ে যেতাম। এভাবেই আমরা সংগ্রাম করেছি।’ ‘অনেক সময় কলেজের দেয়াল টপকিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে আসতাম মিছিলে যোগ দিতে’-বলে যান শেখ হাসিনা। খবর-ঢাকা টাইমস এর।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।