জমজমাট বান্দরবানের ঐতিহ্যবাহী রাজপূণ্যাহ মেলা

বান্দরবানের ঐতিহ্যবাহী রাজপূণ্যাহ মেলায় ব্যাপক লোকসমাগম
বান্দরবানে বুধবার থেকে শুরু হয় শত বছরের ঐতিহ্যবাহী ১৩৯তম রাজপূন্যাহ মেলা। মেলা শুরুর পর থেকে মানুষের ব্যাপক সমাগমে শহরের রাজারমাঠকে ঘিরে মুখরিত মেলা প্রাঙ্গন।
প্রতিবছর হেডম্যান ও কারবারীদের কাছ থেকে খাজনা আদায় অনুষ্ঠান হিসেবে রাজ পূণ্যাহ মেলার আয়োজন করা হয়ে থাকে। মেলা উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যবসায়ীরা দোকান সাজিয়ে বসেছে রাজার মাঠে। সকাল থেকে মধ্যরাত অবধি চলছে বেচাকেনা। বার্ষিক রাজপূণ্যাহ উৎসবকে ঘিরে বসেছে নাগর দোলা, সার্কাস, বিচিত্রানুষ্ঠান, পুতুল নাচ, মৃত্যুকূপসহ ব্যতিক্রমী নানান আয়োজন। এছাড়াও হরেক রকম জিনিসপত্রের দোকান এবং সারারাত ব্যাপী চলছে যাত্রা অনুষ্ঠান।
চট্টগ্রাম থেকে শীতের পোষাক নিয়ে মেলায় আসা বিক্রেতা আমজাদ হোসেন বলেন, নিরাপত্তা ব্যবস্থা বেশ ভালো থাকার কারণে মেলায় লোক সমাগম বেশি, আমাদের বিক্রিও হচ্ছে আশানুরুপ।
বান্দরবানের ঐতিহ্যবাহী রাজপূণ্যাহ মেলায় ফুলের শোপিস কিনতে ব্যস্ত এক শিশু
মেলায় শীতবস্ত্রের দোকানগুলোতে ছিলো ক্রেতাদের সবচেয়ে বেশি ভিড়। এছাড়াও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য থেকে শুরু করে শোপিস এবং খাবারের দোকানগুলোতেও ছিলো দুর দুরান্ত থেকে আসা পাহাড়ী তরুন তরুনীদের পদচারনা। মেলায় বিভিন্ন লোকজ পণ্যের পাশাপাশি লাকী কুপণ, খাবারের দোকান, বাচ্চাদের খেলনা এবং কসমেটিকস সামগ্রীর দোকানের সংখ্যা বেশি। প্রতিদিন এই মেলা দেখতে ভীড় জমাচ্ছে দেশী-বিদেশী হাজারো পর্যটক।
শহরের গ্রীনহিল হোটেলের ম্যানেজার আশিষ ধর বলেন, মেলাকে ঘিরে এত বেশি পর্যটক বান্দরবানে এসেছে, হোটেলে কোন সিট আর খালি নেই, অনেকে ফেরত দিতে হচ্ছে।
এদিকে মেলা উপলক্ষে জেলা শহরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে, ৪শ পুলিশ সদস্যের পাশাপাশি লাগানো হয়েছে ক্লোজ সার্কিট ক্যামরা । আগামী ২৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে এই মেলা।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।