জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাঙামাটিতে জেলা ছাত্রলীগের স্মরণ সভা

রাঙামাটিতে জেলা ছাত্রলীগের স্মরণ সভা
১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাঙামাটিতে জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকালে দলীয় কার্যালয়ে এ স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমার সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি চিংকো রোয়াজা। এছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি হাজী কামাল উদ্দিন, যুগ্ন-সম্পাদক জসিম উদ্দিন বাবুল, পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মাহফুজুর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ছাউয়াল উদ্দিন, শ্রমিকলীগের সাধারন সম্পাদক শামসুল আলম, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজল, পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, রাঙামাটি সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান মাহম্মুদ বাপ্পা, পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিশু দেবনাথসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
স্মরণ সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালে ঘাতকেরা যখন বঙ্গবন্ধু এ বাংলাদেশকে আধুনিক বাংলাদেশে রূপান্তর করার জন্য তাঁর শ্রম মেধা দিয়ে কাজ করে আসছিল ঠিক তখনি ১৯৭১ এর পরাজিত শক্তিরা ১৯৭১ এর ১৫ই আগষ্ট কাপুরুষের মত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তাঁর সহধর্মিনী, শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রাসেলসহ সকলকে হত্যা করে।
বক্তারা আরো বলেন, বিএনপি-জামায়াত আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে নানা ধরনের ষড়যন্ত্র করছে। তার বাস্তব প্রমান সাম্প্রতিক ছাত্রদের নিরাপদ সড়কের ইস্যু। এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে তারা সারাদশে গুজব ছড়ানো এবং সহিংসতার মাধ্যমে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি ও সরকার হঠানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু বাংলাদেশের সাধারণ জনগন সচেতন বিধায় নৈরাজ্যের অপচেষ্টাতে সফল হয়নি। তাই ১৫ই আগস্টের শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে সকল নেতা-কর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কার বিজয় সুনিশ্চিত করার লক্ষে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বক্তারা।
আলোচনা সভা শেষে, ১৫ আগস্ট শাহাদাতবরণকারী বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার-পরিজনের মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।