ঝুলে আছে নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে বাংলাদেশ মিয়ানমার “সীমান্ত হাট” চালুর প্রস্তাবনা

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি
বাংলাদেশ মিয়ানমার এর সাথে স্থল বন্দর চালু করার প্রস্তাবনা নিয়ে গত ২৯ জানুয়ারি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয় দ্বিপাক্ষিক আলোচনা হলেও ঝুলে আছে বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্ত হাট।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এর সহকারী বাণিজ্য পরামর্শক অধি শাখা র সহকারি পরামর্শক আবু ছালেহ মোহাম্মদ ইমরান জানিয়েছেন, ভারত সীমান্ত পথে গবাদী পশু আমদানি বন্ধ হয়ে যাওয়া ও নানা জটিলতা থাকায় বিষয় উল্লেখ করে গত বছরের ৩০ মে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর হতে বাংলাদেশ মিয়ানমার বাণিজ্য সম্পর্ক উন্নয়ন করতে সীমান্তপথে সীমান্ত হাট চালুর বিষয়ে সম্ভাব্যতা যাচাই বাচাই এর নির্দেশনা দেয়া হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৭ জুন বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্ভাব্যতা যাচাই বাচাই এর জন্য জেলা প্রশাসক বান্দরবান বরাবর পত্র প্রেরিত হলে তথ্য, মতামত,ও প্রস্তাবনা প্রেরনের জন্য বান্দরবান জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক আবু জাফর নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত পরিদর্শন করেন।
সীমান্ত হাট এর বিষয়ে ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গির আজিজ বলেন, বিভিন্ন সময় এধরনের সীমান্ত বাণিজ্য বিষয়ে প্রস্তাবনা বা আলোচনা হলেও এ পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ বাস্তবায়ন হয়নি।
আরো জানা গেছে,গত বছরের ১৪ জুন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘুমধুম ইউনিয়ন ও নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের চাকঢালা, দৌছড়ি ইউনিয়নের লেমুছড়ি সীমান্তরেখায় সীমান্ত হাট চালুর বিষয়ে প্রস্তাব প্রেরণ করে। কিন্তু এতদিনেও আশার আলো না দেখায় অনেকটা হতাশা দেখা দিয়েছে সীমান্তে বসবাসরত মানুষের মাঝে।
এই ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম বলেন, সীমান্ত হাট চালুর বিষয়ে যেহেতু প্রধানমন্ত্রী নিজে আগ্রহ দেখিয়েছেন সেহেতু সফলতা আশা করছি।
এদিকে সীমান্ত হাট চালুর বিষয়ে স্থানীয়রা পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।