ঠিকাদার যখন এলজিডি’র রোকন মিয়া : থানচিতে বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে অনিয়ম

নির্মানাধীন কাজের ঠিকাদার এলজিডির কর্মচারী রোকন মিয়া
বান্দরবানে থানচি উপজেলা স্থানীয় সরকার অধিদপ্তর (এলজিইডি)’র পিডিবি-৩ নির্মাণাধীন বিভিন্ন কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এলজিইডি অফিসের কর্মকর্তা -কর্মচারীদের নিয়মিত তদারকির অভাব, অন্যদিকে ক্ষোধ নির্মানাধীন কাজের ঠিকাদার এলজিডির কর্মচারী রোকন মিয়া হওয়ার কারনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো নির্মাণে নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার ও ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ৪নং বলিপাড়া ইউনিয়নের ক্যচু পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি দোতলা ভবন নির্মাণ কাজে দায়িত্ব পায় ইউ.টি.মং নামে একটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। সেখানে উপ- ঠিকাদার হিসেবে এলজিইডি অফিসের ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী মোহাম্মদ রোকন মিয়া কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। যার নির্মান ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৩ লক্ষ টাকা। স্কুল পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয়দের অভিযোগ ক্যচু পাড়া পাশ্ববর্তী সোনা খালে ময়লা অবর্জনা মিশ্রিত বালি ,তাকশিলা পাথরসহ নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার ও ভবনটি নির্মানে শুরুতেই ইটের সলিং না করেই সিসি ঢালাই করা হয়েছে।
নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করে গড়ে তোলা হচ্ছে বড় মদক বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতল ভবন
দায়িত্বরত এক শ্রমিক জানান, ঠিকাদার রোকন মিয়া আমাদের নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়েছে কাজ করতে বাধ্য তবে স্কুল পরিচালনা কমিটি সহ-সভাপতি প্রেমরজ্ঞন চাকমা নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের বাধা দিলে ঠিকাদার রোকন মিয়া আমাদের সামনে তাকে মারধর করে। অন্যদিকে ২ নং তিন্দু ইউনিয়নের তিন্দু গ্রোপিং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি দোতলা ভবন নির্মান কাজে দায়িত্ব পায় ইউ.টি.মং নামে একটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। ভবনের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৩ লক্ষ টাকা। সেখানে ও উপ- ঠিকাদার হিসেবে এলজিইডি অফিসের ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী মোহাম্মদ রোকন মিয়া কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। সেখানেও এলাকাবাসী ও স্কুল পরিচালনা কমিটি সদস্যদের একই অভিযোগ ।
যোগাযোগ করলে থানচি এলজিইডি দপ্তরের ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী মোহাম্মদ রোকন মিয়া বলেন, যোগদানে সময় থানচিতে বিদ্যুৎ নাই , আমার কাজও নাই তবে আমি এভাবে দীর্ঘ ৩৪ বছর পর্যন্ত কাজ করে আসছি। আমার সাথে শেয়ার সরকারি দলের লোকজন রয়েছে । নিউজ করলেও কিছুই হবেনা
নিন্মমানের নদীর বালি দিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে তিন্দু ইউনিয়নের তিন্দু গ্রোপিং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
আরো জানা গেছে, উপজেলা ১নং রেমাক্রী ইউনিয়নের বড় মদক বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি দ্বিতল ভবনের নির্মাণ কাজে দায়িত্বে পায় কক্সবাজারের আল নূর এন্টারপ্রাইজ নামক ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। সেখানে উপ-ঠিকাদার হিসেবে ১নং রেমাক্রী ইউপি চেয়ারম্যান মুইশৈথুই হেডম্যান (রনি) কাজ চালিয়ে যাচ্ছে । স্কুল ভবন নির্মানে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৪ লক্ষ টাকা।
বিদ্যালয়ের অভিবাবক সদস্য উবামং মারমা বলেন, খোলা আকাশের নিচে ইট ভাটা তৈরী করে আগুনে পুড়া নিন্মমানের ইট, স্থানীয় ময়লা আবর্জনা মিশ্রিত বালি, পাথরের কংক্রিট ব্যবহার করা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, যে ধরনের ইট ব্যবহার হচ্ছে তা জীবনে কোন দিন দেখেনি।
একই উপজেলা ৪নং বলিপাড়া ইউনিয়নের ৮৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ের বলিপাড়া বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় দ্বিতল ভবন নির্মাণ,৩১ লক্ষ টাকা ব্যয়ের বলিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় দ্বিতল ভবন নির্মাণ ও ৩৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ের থানচি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দোতলা ভবন নির্মাণ কাজের একইভাবে ঝংকার বালুর পরিবর্তে নিন্মমানের সাংগু নদীর মাটি মিশ্রিত ময়লা অবর্জনাময় বালি, ও স্থানীয় পাথর ব্যবহার করা হচ্ছে।
স্কুল ভবন নির্মান কাজে অনিয়ম দুর্নীতি, টেন্ডার সিন্ডিকেট, আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রকাশ, কার্যালয়ে অনুপস্থিতিসহ নানা অনিয়মের বিষয়ের থানচি উপজেলা এলজিইডি কার্যালয়ের সহকারী উপ-প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন ভূঁঞা বলেন, আমি কর্মস্থলের নিয়মিত থাকিনা সত্য , প্রশাসনিক কর্মকর্তারা ও বান্দরবান জেলা শহরে থাকেন আমাকে ও থাকতে হচ্ছে । সেখানে নিয়মিত থাকার পরিবেশ ও নাই। স্কুল নির্মাণ কাজ গুলোতে নিন্মমানে নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কথা আমাকে বলা হয়নি।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Ratan Dey Shown বলেছেন

    রোকন মিয়া তো থানছি ঠিকাদাদের গড ফাদার,তাই থানছি এলজিডিকে ভুড়ো আন্গুল দেখিয়ে চলে,,

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।