থানচিতে এলজিইডি’র গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার কাজে এত অনিয়ম !

থানচি বাজার থেকে শাহী জামে মসজিদ যাওয়ার রাস্তা সংস্কার প্রকল্পের বরাদ্ধের অর্থ আত্মসাথ
বান্দরবানের থানচি উপজেলায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি) বার্ষিক উন্নয়ন সহায়তা তহবিল (এডিপি)’র পিআইসি আওতায় গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কারের কাজে সরকারী নীতিমালা অনুসারণ না করে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের ক্ষেত্রে সরকারি কর্মচারী বা কর্মকর্তারা প্রকল্পের সভাপতি হয়ে ব্যাপক অনিয়ম দূর্নীতি ও সরকারি অর্থ লোপাটের অভিযোগ উঠেছে ।
৪টি প্রকল্পের বাস্তবায়নের কমিটি’র সভাপতি দায়িত্বে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে কর্মচারী । এই ক্ষেত্রে উপজেলা পর্যায়ের এলজিইডি কর্মকর্তা থেকে শুরু করে উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা যোগসাজশ রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে ।
এলজিইডি কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৫-১৬ অর্থ সালে বার্ষিক উন্নয়ন সহায়তা তহবিল (এডিপি)’র পিআইসি আওতায় গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কারের কাজের ৪টি প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটি সভাপতি করা হয়েছে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে কর্মচারীদের। প্রকল্প মধ্যে থানচি বাজার থেকে শাহী জামে মসজিদ যাওয়ার রাস্তা সংস্কার প্রকল্পের বরাদ্ধ দেয়া হয় ২ লক্ষ টাকা ,তিন্দু ইউনিয়নের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার সরবরাহ প্রকল্পের বরাদ্ধ দেয়া হয় ১ লক্ষ ৬৮ হাজার টাকা,প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটি সভাপতি করানো হয়েছে উপজেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে ৩য় শ্রেণির কর্মচারী মোহাম্মদ সেলিম রেজাকে ।
প্রকল্পের বাস্তবায়নের সরেজমিনে গেলে থানচি বাজার শাহী জামে মসজিদে ইমাম মৌলানা আনিচ উল্লাহ মোবারক, মসজিদ পরিচালনা কমিটি সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন জানান, রাস্তায় কোন প্রকার কাজ করতে দেখা যায়নি এবং রাস্তাটি খানাখন্দে পড়ে রয়েছে ।
মসজিদ রাস্তা পার্শ্বের দোকানদার পল্লী ডাক্তার বিমল বড়ুয়া,আবদুল সালাম জানান,সামান্য বৃষ্টি হলে পর্যটকসহ স্থানীয়রা অনেকে পা পিছলে আহত হয়েছে । আমরা উপজেলা চেয়ারম্যানকে অনেকবার বলেছি তিনি আমাদের কথার কোন গুরত্ব দেয়নি।
তিন্দু গ্রোপিং পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রেংঙেক ম্রো জানান , আমাদের তিন্দু ইউনিয়নে এক মাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন প্রকার কম্পিউটার পাওয়া যায়নি। এই ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে ৩য় শ্রেণির কর্মচারী মোহাম্মদ সেলিম রেজা সাংবাদিকদের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নাই বলে চলে যান ।
সরকারের নীতিমালা অনুসারে জানা যায়, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের ক্ষেত্রে সরাসরি সরকারি কর্মচারী বা কর্মকর্তাগণ প্রকল্পের সভাপতি হতে পারবেন না । সম্পূর্ণভাবে জনপ্রতিনিধিদের দারা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা যাবে বলা হয়েছে ।
এদিকে ছাংদাক পাড়া হতে থানচি বাজারে পানির পাইপ লাইন সরবরাহ কাজের ব্যয় দেখানো হয়েছে ২ লক্ষ টাকা,প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটি সভাপতি করা হয়েছে , উপজেলার একটি খামার একটি বাড়ীর সমন্বয়ক মোহাম্মদ আলমগীর হোসেনকে।
এই বিষয়ের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে উপসহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মুজিবর রহমান জানান, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অর্থায়নে ২০০৯-১০ সালে ৩৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ের সেগুম ঝিড়ি থেকে থানচি বাজারের পানির পাইপ লাইন সরবরাহ করা হয়েছে এবং বর্তমানেও থানচি বাজারবাসী বিশুদ্ধ পানীয় জল ব্যবহার করছে ।
অপর দিকে থানচি হেডম্যান পাড়া রাস্তা ইটের সলিং করণ প্রকল্পের ব্যয় দেখানো হয়েছে ২ লক্ষ টাকা । প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটি সভাপতি করানো হয়েছে , থানচি হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাঅংপ্রæ মারমাকে , তাও ২০১০ সালে পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ড অর্থায়নে ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ের থানচি আলিকদম সড়ক হতে হেডম্যান পাড়া যাওয়ার রাস্তায় ইটের সলিং করণ করা হয়েছে ।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ভারপ্রাপ্ত প্রকৌশলী মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন ভূঞা জানান, প্রকল্পটি ছিল গত অর্থসালে সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন হয়েছে বলে দাবী করেন তিনি। প্রয়োজনে বিভাগীয় তদন্ত করতে পারেন।
এই ব্যাপারে থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রকল্পটি গত অর্থ বছরের তখন মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন দায়িত্বে ছিলেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।