থানচিতে কাটা হলো দেড়শ বছরের পুরোনো তেঁতুল গাছ

উপজেলা চেয়ারম্যানের যোগসাজস !

বান্দরবানের থানচিতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের যোগসাজসে থানচি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীরে দাঁড়িয়ে থাকা দেড়শত বছরের পুরোনো তেঁতুল গাছ কর্তন করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বন বিভাগের অনুমতি ও কোন প্রকার নিলাম বিজ্ঞপ্তি ছাড়ায় ঐতিহাসিক পুরোনো গাছটি কাটা নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

গত ১ লা জুলাই কঠোর লকডাউন সুযোগে ৩/৪ জন শ্রমিক দিন রাত সময় নিয়ে তেঁতুল গাছটি কাটতে এক সপ্তাহ সময় লেগেছিল বলে জানালেন গাছ কাটা শ্রমিক জাহাঙ্গির আলম ৩৫। গত ৭ জুলাই বেলা দেড় টায় গাছটি কাটা শেষ হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, থানচি উপজেলার বাজারে আর কোন এই ধরণের বড় বৃক্ষ না থাকলেও ঐতিহ্যবাহী এই তেঁতুল গাছটি প্রচুর ছায়া দিত এবং ধরতো তেঁতুলও। দূর-দূরন্ত থেকে বাজারে আসা মানুষ তপ্ত রোদে এই গাছের নিচে বসে বিশ্রাম নিতেন।

থানচি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ বলেন, বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ চলছে, গাছটি সীমানা প্রাচীরে পড়ার কারনে কেটে ফেলা হয়েছে।

কোন প্রক্রিয়া কেটেছেন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের সহযোগীতা নিয়ে কেটেছি।

এই ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বিদ্যালয় গর্ভানিং কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আতাউল গনি ওসমানী বলেন,পুরোনো তেঁতুল গাছ (বৃক্ষ) টি কেটে ফেলার বিষয়ে প্রধান শিক্ষক ও সংশ্লিষ্ঠরা আমাকে অবহিত করেনি, এ বিষয়ের আমি কিছু জানিনা। তবে আমাকে জানালে নিলামের মাধ্যমে রাজস্ব আদায় ও বৈধ পন্থা কাটতে সহায়ক হতো।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।