থানচিতে নিন্মাঞ্চল প্লাবিত : সড়ক ও নৌপথ বিচ্ছিন্ন

থানচিতে নৌ চলাচল বন্ধ
টানা বৃষ্টির কারনে সাঙ্গু নদীর পানির বৃদ্ধি ও বিভিন্ন ঝিড়িরর পানি প্রবাহ বৃদ্ধি কারনে বান্দরবানের থানচি উপজেলার বিভিন্ন এলাকার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। থানচির বিভিন্ন এলাকায় পাহাড় ধসে সড়ক ও নৌপথ বিছিন্ন থাকায় স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা স্কুলে না আসার কারনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদ যৌথভাবে থানচি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও বলিবাজার উচ্চ বিদ্যালয় ২টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা রাখা হয়েছে। ঔ সব আশ্রয় কেন্দ্রে চাল, ডাল, চিনি, যাবতীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। তবে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলায় হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিগত শনিবার হতে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত টানা এক সপ্তাহ ব্যাপী ভারী বৃষ্টি,প্রবল বর্ষনে উপজেলা থানচি বাজারের নদীর আশে পাশে বসবাসরত প্রায় অর্ধশতাধিক পরিবার এবং বলিপাড়া ইউনিয়নের হিন্দু পাড়া বাগান পাড়া হাইল মারা পাড়াসহ কয়েকটি পাড়ায় নিন্মঅঞ্চল প্লাবিত হয়।
এদিকে থানচি আলিকদম সড়কের কয়েকটি স্থানে পাহাড় ধসে পড়েছে। বান্দরবান থানচি সড়কের জীবন নগর নামক স্থান হতে বলিপাড়া বাজার পর্যন্ত প্রায় ৯ কিলোমিটার দুরত্বে কয়েকটি স্থানে পাহাড় ধসে সড়কের ব্লক হয়ে যাওয়ার জেলা সদর সাথে সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা বিছিন্ন রয়েছে।
নিন্মাঞ্চল প্লাবিত ও বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আরিফুল হক মৃদুল, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাংসার ম্রো, থানচি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ, বলিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াঅং মারমা।
সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাংসার ম্রো বলেন, আমার ইউনিয়নের নদীর তীরবর্তী এলাকায় বসবাসরত ৫ শতাধিক পরিবার বন্যায় কবলিত হয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।