থানচিতে মৌজা প্রধানের অত্যাচারে স্থানীয়রা অতিষ্ট

তিন্দু মৌজায় হেডম্যান প্রেনথান খুমী
বান্দরবানের থানচিতে তিন্দু ইউনিয়নের তিন্দু মৌজায় হেডম্যানের প্রেনথান খুমীর বিভিন্ন অপকর্মের প্রতিকার চেয়ে দৃস্তান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে জেলা প্রশাসক বরাবরে মৌজার কারবারী ও জনপ্রতিনিধিরা আবেদন করেছে।
পাড়ার প্রধান (কারবারী)দের সরকারি প্রদত্ত সম্মানি ভাতা আত্মসাৎ, অত্যাচার, নির্যাতন, বার্ষিক জুম খাজনায় অতিরিক্ত অর্থ আদায়, এক স্থানকে একাধিক ব্যক্তির নামে ভূমির প্রাথমিক মালিকানা দেওয়ার একাধিক অভিযোগে প্রতিকার চেয়ে এই আবেদন দেওয়া হয়।
মৌজাবাসীদের অভিযোগে জানা যায়, ৩৬৭ নং তিন্দু মৌজায় আদিবাসী মারমা আর খুমী সম্প্রদায়ের বসবাস। জনসংখ্যা অনুপাতে মারমা সম্প্রদায়ের চেয়ে খুমী বেশী। ফলে হেডম্যান হিসাবে প্রেনথান খুমী দায়িত্ব পাওয়ার পর মৌজাটিতে বিভিন্ন ধরণের সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে বলে জানা গেছে।
ইউপি মেম্বার ক্রানিংঅং মারমা জানান, আমার তার বিরুদ্ধে আবেদন করার উদ্যোগ নিয়েছি। প্রেনথান হেডম্যান নানা কায়দা নির্যাতন,জোর জুলুম, অত্যাচারের কারনে এলাকায় সামাজিক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে।
ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেম্বার কাইথাং খুমী জানান ,তিন্দু মৌজায় হেডম্যান কর্তৃক সরকারের প্রদত্ত কারবারীদের সম্মানি ভাতা আত্বসাৎ, জমি বন্দোবস্তির আবেদনে একটি স্থানকে একাধিক ব্যক্তির নামে সুপারিশ, জুম খাজনা ১৫/২০ টাকা স্থলের পাঁচ শত হতে এক হাজার টাকা আদায়সহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে, আমরা তার দৃস্তান্তমূলক শাস্তি দাবী জানাচ্ছি ।
এই ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, জেলা প্রশাসক বরাবরে অভিযোগ পত্র অনুলিপি কপি পেয়েছি, জেলা প্রশাসক মহোদয় অভিযোগের বিষয়ে নির্দেশ প্রদান করলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তবে এ বিষয়ের মৌজা হেডম্যান প্রেনথান খুমী মুঠো ফোন বন্ধ থাকার কারনে তার বক্তব্য নেয়ার সম্ভব হয় নি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।