থানচির জনপ্রিয় নেতা ক্যসাউ মারমা বিএনপি ছাড়লেন

বান্দরবানে থানচি উপজেলা জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি সংগঠনের অন্যতম সদস্য ও উপজেলা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি, মৌজা হেডম্যান ক্যসাউ মারমা দির্ঘ ৩৪ বছর পর স্বেচ্ছায় অব্যহতি চেয়ে দলের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান খামলাই ম্রো’র কাছে আবেদন করেন, পরে এই পদত্যাগপত্র বান্দরবান জেলার নেতাদের নিকট হস্তান্তর করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ শে অক্টোবর ক্যসাউ মারমা আবেদন করেন। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে খামলাই ম্রো বলেন, বয়স জনিত কারনে ক্যসাউ মারমা অনেক সিনিয়র, তাই দলের আর সময় দিতে পারবেনা, সে কারনে তাঁর অব্যহতি পত্র পেয়ে জেলার নেতাদের সিধান্তের জন্য সুপারিশ করেছি।

ক্যসাউ মারমা সাংবাদিকদের জানান,আমি ১৯৮৭ সাল হতে বিএনপি দলের সাথে, বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনসহ থানচি উপজেলা শাখা দলে দু:সময় সু-সময় সুদির্ঘ ৩৪ বছর কাজ করে আসছি। কিন্তু আজ আমার বয়সের কারনে দল থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ বা অব্যহতি চেয়েছি। বাকি জীবনে মানব সেবা ছাড়াও সরকারী উন্নয়ন কাজে এবং ধর্মীয় সেবা মূলক কাজের সাথে সম্পৃক্ততা রাখবো।

ক্যসাউ মারমা ১৯৯১ সালে বলিপাড়া ইউনিয়নের মেম্বার, ১৯৯৭ সালে ইউপি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে অল্প ভোটে ব্যবধানে নির্বাচিত হয়নি। কিন্তু ফের ২০১১ সালে নির্বাচনে বলিপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে দির্ঘ ৯ বছর দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তার বাবা ২০০৬ সালে মারা যাওয়ার পর রুমা থানচি উপজেলা সীমান্তে কাইগ মৌজা হেডম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

বিগত ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশ নেন সেখানেও অল্প ভোটের ব্যবধানে হেরে যান। তিনি সাবেক মেম্বার থেকে চেয়ারম্যান ও বর্তমান মৌজা হেডম্যান হিসেবে তার জনপ্রিয়তা ধরে রাখেন। তার পদত্যাগের কারনে বিএনপি একজন ত্যাগী নেতা হারিয়েছে বলে মনে করছে সংগঠনটির নেতারা।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।