দীঘিনালায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ’র অভিযোগ

খাগড়াছড়ির দীঘিনালার উত্তর রেংকার্য্যা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উষা আলো চাকমার বিরুদ্ধে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণের অব্যয়িত অর্থ আত্মসাৎ সহ নানা অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, গত বছরের ৪ নভেম্বর চট্টগ্রাম বোর্ডের আওতাধীন সকল বিদ্যালয়ে বোর্ডের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরিক্ষা নিয়ন্ত্রক নারায়ণ চন্দ্র নাথ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসএসসি পরীক্ষা-২০২১ এর ফরমপূরণ বাবদ আদায়কৃত অর্থের অব্যয়িত অর্থ ফেরত প্রদান করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

এতে দীঘিনালার উত্তর রেংকার্য্যা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহনকারী শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণের অব্যয়িত ২৩ হাজার ৩৬০ টাকা ফেরত দেওয়ার কথা থাকলেও বিদ্যালয় থেকে কোন অর্থ শিক্ষার্থীদের ফেরত দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিদ্যালয়টির ২০২১ সালের এসএসসি পরিক্ষার্থী জয়া চাকমা, নয়ন বিকাশ চাকমা, সমাপ্তি চাকমা ও স্বরনিকা চাকমা সহ একাধিক শিক্ষার্থীদের অবিভাবকগন জানান, ফরম পূরণের অব্যয়িত কোন অর্থ তারা ফেরত পাননি৷ এমনকি ফরম পূরণ বাবদ প্রত্যেককে ২ হাজার ৯০০ টাকা হতে ৬ হাজার টাকা প্রদান করতে হয়েছে৷

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উত্তর রেংকার্য্যা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক জ্ঞান চাকমা জানান, ফরম পূরণের অব্যয়িত অর্থ শিক্ষার্থীদের ফেরত দেওয়ার বিষয়ে তিনি অবগত নন। এ বিষয়ে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি ভাল জানবে।

বিদ্যালয়টির সভাপতি আশিষ চাকমার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এবিষয়ে অবগত নন বলে জানান। তাছাড়া তিনি না জানলে সভাপতির স্বাক্ষর ব্যতীত কিভাবে টাকা উত্তোলন করা হয়েছে বলে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, প্রধান শিক্ষক এ বিষয়ে জানে৷

উত্তর রেংকার্য্যা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উষা আলো চাকমা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি আমার বিদ্যালয়ে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণের অব্যয়িত সকল অর্থ ফেরত দিয়েছি ৷ আমার কাছে সকল তথ্য আছে। এসময় তিনি মুঠোফোনে বিদ্যালয়টির সভাপতি আশিষ চাকমাকে ধরিয়ে দিলে তিনি জানান, অব্যয়িত অর্থ ফেরতের সময় তিনি সভাপতি ছিলেননা।

দীঘিনালা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, বিষয়টি অতিব দুঃখজনক। আমি বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অবিভাবকদের সাথে কথা বলবো৷ এবিষয়ে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

খাগড়াছড়ি জেলা শিক্ষা অফিসার উত্তম খীসা জানান, ২০২১ সালের এসএসসি পরিক্ষার্থীদের ফরম পূরণের অব্যয়িত টাকা ফেরত দিয়েছে চট্টগ্রাম বোর্ড। কোন বিদ্যালয়ে টাকা ফেরত না দেওয়ার বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি। তবে বিষয়টি নিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলবো৷

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।