নজর কাড়লো রোয়াংছড়ির মাহা সাংগ্রাইং উৎসব

রোয়াংছড়ির মাহা সাংগ্রাইং উৎসবে নৃত্যরত আদিবাসী তরুন তরুণীর
বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার সাংগ্রাইং উৎসব যেন নজর কাড়লো অতিথিসহ দর্শনার্থীদের। জেলার অন্যান্য এলাকার সাংগ্রাইং উৎসবের চেয়ে অনেক গুণ বেশী আকর্ষণ জুগিয়েছে রোয়াংছড়ি হাই স্কুল মাঠের জমকালো আয়োজন। মারমা সম্প্রদায়ের যুবক-যুবতীসহ বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ তাদের নিজস্ব আদি ঐতিহ্য তুলে ধরে চমকপ্রদ অনুষ্ঠান পরিবেশন করেছেন। একদিকে শিশু-কিশোররা নেচে-গেয়ে জল ছিঠানোতে ব্যস্ত অন্যদিকে পুরো মাঠ জুড়ে একের পর এক মারমাদের নিজস্ব খেলাধুলা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিসহ আগত সকল অতিথিসহ উৎসবে আসা সকল সম্প্রদায়ের মানুষকে মুগ্ধ করেছে আয়োজকদের পরিবেশনা।
বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সহযোগিতায় ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠি সাংস্কৃতিক ইনিষ্টিটিউট মাহা সাংগ্রাইং পোয়ে উৎসবের আয়োজন করে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। রোয়াংছড়ি মৌজার হেডম্যান চ থুই প্রু’র সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশিদ, রোয়াংছড়ি সেনা ক্যাম্প কমান্ডার মেজর সালাহউদ্দিন, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কাজল কান্তি দাশ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অনির্বান চাকমা, উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ, জেলা পরিষদ সদস্য কাঞ্চনজয় তংচংঙ্গ্যা, ক্যসা প্রু মারমা, সিং ইয়ং ম্রো, ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠির সাংস্কৃতিক ইনিষ্টিটিউটের পরিচালক মং নু চিং মারমা, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান মা উ সাং মারমা, উৎসব উদযাপন পরিষদের আহবায়ক ও রোয়াংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান ছ হ্লা মং মারমা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
রোয়াংছড়ির মাহা সাংগ্রাইং উৎসবের উদ্ভোধন করেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি
অনুষ্ঠানে বীর বাহাদুর বলেন, রোয়াংছড়ির সাংগ্রাইং উৎসবে পুরানো অনেক ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ফুটে উঠেছে, যা বিলুপ্ত প্রায়। ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠির পরিচালক মং নু চিং এর প্রশংসা করে তিনি বলেন, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতি সত্তার কৃষ্টি ঐতিহ্য আর সংস্কৃতি হারিয়ে যেতে বসেছে কিন্তু তিনি পরিচালকের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে কৃষ্টি সংস্কৃতি ফিরিয়ে এনেছেন।
প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, প্রতিটি জাতি সত্তার অস্থিত্ব ধরে রাখতে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। নিজেকে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে। শিক্ষা ছাড়া জাতিকে এগিয়ে নেয়ার আর কোন বিকল্প নেই। যারা অসৎ পথ অবলম্বন করে তাদের সাথে না মিশে নিজেকে শিক্ষার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য যুবকদের আহবান জানান তিনি। অনুষ্ঠানে শেষে প্রতিমন্ত্রী বিভিন্ন লোকজ সংস্কৃতি ও বিভিন্ন খেলাধুলায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।
প্রসঙ্গত, সাংগ্রাইং অনুষ্ঠানে যোগদানের আগে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে রোয়াংছড়ি কলেজের পাকা ভবন নির্মানের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি। ২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হবে রোয়াংছড়ি কলেজ।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।