নতুন আঙ্গিকে সাজছে বান্দরবান স্টেডিয়াম

দীর্ঘদিন নানা সমস্যায় জর্জরিত থাকার পর বান্দরবান জেলা স্টেডিয়াম নতুন আঙ্গিকে সাজানোর কাজ শুরু হয়েছে, আগামীতে ধারাবাহিক ভাবে খেলাধুলা পরিচালনার জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ শুরু হয়েছে ইতোমধ্যে, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ক্রীড়াঙ্গনের এই সুসংবাদে উচ্ছস্বিত খেলোয়াড় ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, করোনার কারণে দীর্ঘদিন বান্দরবান স্টেডিয়ামে কোন টুর্ণামেন্টের আয়োজন না হওয়ায় মাঠের অবস্থা হয়ে পড়েছিল জরাজীর্ণ, মাঠ জুড়ে বড় বড় ঘাসের স্তুুপের পাশাপাশি বিরর্ণ রংয়ে পরিণত হয়ে নষ্ট হতে বসেছিল স্টেডিয়ামের প্যাভেলিয়ান আর দর্শক গ্যালারী। করোনা আর লকডাউনে কর্তৃপক্ষ কোন টুর্ণামেন্টের আয়োজন না করায় ক্রীড়াঙ্গনে নেমে এসেছিল স্থবিরতা। তবে এখন সেই চেহারার পরিবর্তন হচ্ছে,মাঠ সংস্কারে নজর দিয়েছে জেলা ক্রীড়া সংস্থা আর ঘাস কাটার পাশাপাশি দর্শক গ্যালারী সহ বিভিন্ন স্থাপনা রং করার কাজ শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ আর এতে আশার আলো দেখছে ক্রীড়াপ্রেমীরা।

বান্দরবানের ক্রিকেটার রাহুল দাশ বলেন, দীর্ঘদিন স্টেডিয়ামে কোন কাজ হয়নি, আর কাজ না হওয়ায় মাঠে বড় বড় ঘাস গজে ওঠায় আমরা কোন অনুশীলন করতে পারেনি।

তিনি আরো বলেন,সঠিকভাবে নজর না দেয়ায় বান্দরবানের অনেক উদীয়মান ক্রীড়াবিদ ক্রীড়াঙ্গন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল। দীর্ঘদিন পরে মাঠের ঘাস কাটার পাশাপাশি পুরো স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় আমরা আনন্দিত।

বান্দরবানের ফুটবলার শহীদুর রহমান সোহেল জানান, স্টেডিয়ামে আমরা প্রতিদিন বিকেলেই ফুটবল অনুশীলন করি তবে দীর্ঘদিন মাঠের কোন সংস্কার না হওয়ায় আমরা মাঠের এক পাশে অনুশীলন করতে বাধ্য হয়েছি। দীর্ঘদিন পরে হলেও মাঠের কাজ শুরু হয়েছে এবং আমরা মনে করি, ক্রীড়াঙ্গন যদি সঠিক ভাবে এগিয়ে যায় তবে যুব সমাজ সুস্থ থাকবে এবং দেশের উন্নয়ন হবে।

এদিকে সম্প্রতি স্টেডিয়ামের মাঠের ঘাস কাটার জন্য বান্দরবান জেলা প্রশাসন থেকে জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে প্রদান করা হয়েছে একটি মোয়ার মেশিন (ঘাস কাটার যন্ত্র),আর এই মোয়ার মেশিনের পাশাপাশি কয়েকজন পরিছন্নতাকর্মী কাজ করছে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত। দীর্ঘদিন পরে নতুন রুপে স্টেডিয়ামের এই সাজে উচ্ছস্বিত ক্রীড়া সংশ্লিষ্টরা।

বান্দরবান জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সম্পাদক মুজিবুর রশীদ জানান, খোলোয়াড়রা মূলত স্টেডিয়ামে নিয়মিত অনুশীলন করে। এই মাঠে ফুটবল, ক্রিকেট, ভলিবলসহ নানা ধরণের টুর্ণামেন্ট হতো তবে দীর্ঘদিন করোনা আর লকডাউন আমাদের ক্রীড়াঙ্গনকে থমকে দিলে ও বর্তমান জেলা প্রশাসক উদ্যোগী হয়ে ক্রীড়াঙ্গনকে চাঙ্গা করতে বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন, আমরা মনে করি এই পরিকল্পনা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হলে বান্দরবান থেকে আরো নতুন নতুন খোলোয়াড় উঠে আসবে এবং ক্রীড়া ক্ষেত্রে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আরো সফলতা আসবে।

বান্দরবান জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য দিলীপ কুমার দাশ বলেন, দীর্ঘদিন কোন টুর্নামেন্ট হয়নি তবে জেলা ক্রীড়া সংস্থা জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় শীঘ্রই বিভিন্ন টুর্ণামেন্টের আয়োজন করবে এবং তাতে আবার ক্রীড়াঙ্গন নতুনভাবে উজ্ববিত হবে।

২০১৮সালে সর্বশেষ বান্দরবান জেলা স্টেডিয়ামে জেলা ফুটবল লীগ অনুষ্টিত হলেও তারপরে হয়নি আর কোন টুর্ণামেন্ট, তবে এবার মাঠ সংস্কারের পাশাপাশি শীঘ্রই জেলায় বিভিন্ন টুর্ণামেন্টের আয়োজনের কথা জানান জেলা প্রশাসক এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি।

জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বলেন,আমরা এখন বিভিন্ন টুর্ণামেন্টের আয়োজন করবো এবং খোলোয়াড়রা যাতে মাঠে থাকে সেজন্য জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।