নাইক্ষ্যংছড়িতে মাছ চাষে সফলতার মুখ দেখেছেন ইউপি মেম্বার

নাইক্ষ্যংছড়িতে মাছ চাষে
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের হলুদ্যাশিয়া গ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য মোঃ নুরুল আজিম প্রকাশ আজিম মেম্বার। কৃষি কাজের পাশাপাশি মাছ চাষে ও সফলতার মুখ দেখেছেন তিনি।
জানা গেছে, মাত্র তিন মাস আগে নিজ উদ্যোগে ষাট শতক জায়গা বর্গা নিয়ে ধান চাষের জমিতে বাধ দিয়ে মাছ চাষ শুরু করেন। তিনি বিভিন্ন জাতের মাছের পোনা এক সাথে চাষ করেন সম্পুর্ন নিজের বিবেক বুদ্ধি খাটিয়ে। কোন প্রকার সরকারী মৎস্য অফিস থেকে পরামর্শ ও সহযোগিতা পায়নি তিনি।
বর্তমানে তার প্রজেক্টে মাছের পোনা গুলু পাচঁশ থেকে একহাজার গ্রাম হয়েছে। মাছ চাষী আজিম মেম্বারের সাথে কথা বলে জানা যায়, ৮০ দিন বয়স থেকে তিনি মাছ বিক্রি শুরু করেছেন। তার প্রজেক্টে তেলা পিয়া, কার্পো, পাংগাস, রুই, কাতালসহ নানান জাতের মাছ রয়েছে। এর মধ্যে বড় হয়েছে পাংগাস, কার্পো, তেলাপিয়া মাছ। বাকীগুলোর এখনো সাইজের বাহিরে থাকায় বিক্রি করছেননা।
একদিনে চারশত কেজি মাছ বিক্রি করে মুলধন হাতে চলে আসায় তিনি সফলতার মুখ দেখতে শুরু করেছেন বলে জানান। সম্পুর্ন নিজস্ব পদ্বতিতে দেশীয় ধানের কুড়া, খইল, বাজার থেকে ক্রয় করা মাছের খাবার দিয়ে মাছ চাষ শুরু করেন। তবে মাঝে মধ্যে পুরাতন পানি পাল্টিয়ে নতুন পানি দিতে হয় বলে ও জানান। মোঃ নুরুল আজিম বর্তমানে বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার তিনি বসে নেই অন্য দশজন সাধারন মানুষের মতন কৃষি কাজ ধান চাষ, সবজি, আলু টমেটো সহ বিভিন্ন ধরনের শাক সবজি আবাদ করে ও তাক লাগিয়ে দিয়েছেন।
প্রত্যান্ত এলাকার মানুষের কথা চিন্তা করে বিগত কয়েক বছর ধরে মৌসুম অনুযায়ী চাষাবাদ অব্যাহত রেখেছেন। এতে তিনি একদিকে নিজের এলাকায় আমিষ জাতীয় খাদ্যের চাহিদা মিটিয়ে অন্যান্য এলাকায় রপ্তানি ও করে যাচ্ছে। বর্তমানে তিনি ও সফল এলাকার লোকজন ও সফল বলে দাবী করছেন।
নাইক্ষ্যংছড়ির উপ সহকারী কৃষি অফিসার রফিকুল আলম বলেন, আজিম মেম্বার শুধু জনপ্রতিনিধি নয়, একজন সফল কৃষক হিসাবে তালিকা ভুক্ত চাষী। তাছাড়া তিনি সবচেয়ে বেশী কৃষি জমি আবাদ করে থাকেন বলে ও জানান দায়িত্বপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা। স্থানীয় বাসিন্দারা সফল চাষী আজিম মেম্বারকে পুরস্কৃত করার দাবী জানান।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।